টাঙ্গাইলে আদম ব্যবসায়ির খপ্পরে পড়ে মুক্তিযোদ্ধাসহ নি:স্ব ৪ পরিবার

আবুল কালাম আজাদ: টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার বাংড়া ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আদম বেপারী মোখলেছুর রহমানের খপ্পড়ে পড়ে মুক্তিযোদ্ধাসহ চারটি পরিবার নি:স্ব হয়ে পড়েছেন। চোখে রঙ্গিন স্বপ্ন নিয়ে স্ত্রী সন্তানদের সুখের কথা ভেবে বিদেশ যাওয়ার উদ্দেশ্যে পাসপোর্ট ও নগদ টাকা প্রদান করেন আদম বেপারী মোখলেছুর রহমানের কাছে। কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও তাদের বিদেশ না পাঠিয়ে বিভিন্ন তালবাহানা শুরু করে।পাওনা টাকা চাইতে গেলে তার বাহামভূক্ত লোকজন দিয়ে ভূক্তভোগিদের প্রাণনাশের হুমকি দেয়। বৃহস্পতিবার সকালে কালিহাতী প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগি চার পরিবার। সংবাদ সম্মেলনে তারা লিখিত বক্তব্যে বলেন,বিগত ২০১২ সালে বিদেশ যাওয়ার উদ্দেশ্যে ভূক্তভোগি উপজেলার কামার্থী গ্রামের রিয়াজ উদ্দিন ভূইয়ার ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন ভূইয়া ২ লাখ ৭০ হাজার টাকা, বাগুটিয়া গ্রামের আছান আলীর ছেলে জুরান আলী ১ লাখ ৪৫ হাজার টাকা, রতনগঞ্জ গ্রামের ফনিন্দ্র সূত্রধরের ছেলে মদন সূত্রধর ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা, হরিপুর গ্রামের কাদের তালুকদারের ছেলে আব্দুল হালিম ৮ লাখ টাকা মোখলেছুর রহমানকে প্রদান করেন।দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও তাদেরকে বিদেশে না পাঠিয়ে টাকা ফেরৎ দিতে অস্বীকৃতি জানায়। টাকা চাইতে গেলে তার বাহামভূক্ত লোকজন দিয়ে ভূক্তভোগিদের প্রাণনাশের হুমকি দেয়। তারা আরোও বলেন, এ বিষয়টি কালিহাতী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদারের নিকট জানালেও তিনি কোন উদ্যোগ নেয়নি। এ ব্যাপারে বাংড়া ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আদম বেপারী মোখলেছুর রহমান জানান,আমি আদম ব্যবসা ছেড়ে দিয়েছি ১০/১২ বছর আগে।এসব অভিযোগের কোন ভিত্তি নেই।আমাকে হয়রানি করার জন্য এসব বিষয় নিয়ে আমার নামে একের পর এক মামলা দেয়া হচ্ছে।