ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো

কাগজ ডেস্ক: ধর্ষণ মামলার তদন্তে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ডিএনএ চেয়ে পরোয়ানা জারি করেছে লাস ভেগাস পুলিশ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বিপক্ষে ধর্ষণ মামলার তদন্ত করছে লাস ভেগাস পুলিশ। এই মামলার বাদী ক্যাথরিন মায়োরগার পোশাকে ডিএনএ খুঁজে পেয়েছেন তাঁরা। যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম ‘ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল’ জানিয়েছে, রোনালদোর ডিএনএ নমুনা চেয়ে পরোয়ানা জারি করেছে লাস ভেগাস পুলিশ। ধর্ষণের অভিযোগকারি মায়োরগার পোশাকে খুঁজে পাওয়া ডিএনএ-র সঙ্গে রোনালদোর ডিএনএ মিলিয়ে দেখতে চান তাঁরা।
যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক মডেল ক্যাথরিন মায়োরগার অভিযোগ, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসের এক হোটেলে তাঁকে ধর্ষণ করেছিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। গত সেপ্টেম্বর নেভাদার আদালতে রোনালদোর বিরুদ্ধে মামলা করেন মায়োরগা। লাস ভেগাস পুলিশ এরই মধ্যে ডিএনএ পরোয়ানা ইতালিয়ান কর্তৃপক্ষকে পাঠিয়েছে। রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে যোগ দেওয়ার পর রোনালদো ইতালির তুরিনে বসবাস করছেন। সেখানকার বিচারিক কর্তৃপক্ষের কাছে এই পরোয়ানা পাঠিয়েছে লাস ভেগাস পুলিশ। ইতালিয়ান পুলিশ এখন রোনালদোর ডিএনএ সংগ্রহ করে লাস ভেগাস পুলিশকে পাঠাবে।
লাস ভেগাস পুলিশের কর্মকর্তা লরা মেল্টজার সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘অন্য সব যৌন হয়রানির মামলায় যেসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়, এই মামলা সেভাবেই তদন্ত করছে লাস ভেগাস মেট্রোপলিটন পুলিশ। ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে এ কারণেই। ইতালিয়ান কর্তৃপক্ষকে এ ব্যাপারে অফিশিয়ালি অনুরোধ করা হয়েছে তা নিশ্চিত করতে পারি।’
পুলিশের ডিএনএ নমুনা চাওয়া প্রসঙ্গে রোনালদোর আইনজীবী পিটার এস, ক্রিস্টিয়ানসেন বলেন, ‘রোনালদো আগের মতো এখনো বলছেন, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসে যা হয়েছিল সেটি আসলে পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে। তাই ডিএনএ থাকার বিষয়টি মোটেও অবাক করার মতো কিছু নয়।’