স্বপন কুমার কুন্ডু: ঈশ্বরদীস্থ পদ্মা নদীতে পানি অস্বাভাবিক ভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় ঈশ্বরদীর চরধাপাড়ি মৌজার মোল্লা পাড়ায় বাঁধ উপচে পানি লোকালয়ে ঢুকেছে। এতে বিপুল সংখ্যক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বিশুদ্ধ পানির অভাব ও চুলা জ্বালিয়ে রান্না করতে না পারায় তাদের দুর্ভোগ বেড়েছে।

এদিকে চরাঞ্চল পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় গো-খাদ্যের চরম সংকট দেখা দিয়েছে। বন্যাকবলিত চরবাসীদের গো-খাদ্যের অভাবে গবাদিপশু নিয়েও ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। চরের বাসিন্দারা এই অবস্থায় গরু-মহিষসহ গবাদিপশু এবং ঘরবাড়ি ভেঙে নৌকায় করে এপারে আসছেন।

ঈশ্বরদীতে পদ্মার পানি প্রতিদিনই বাড়ছে। পাবনা পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, ঈশ্বরদীস্থ পদ্মা নদীতে এখন প্রতিদিন গড়ে ১২ সেন্টিমিটার করে পানি বাড়ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ পয়েন্টে পানির উচ্চতা পাওয়া গেছে ১৩ দশমিক ৯১ মিটার। পদ্মা নদীর হার্ডিঞ্জ ব্রিজ পয়েন্টে বিপদসীমা ১৪ দশমিক ২৫ মিটার। অর্থাৎ পানি বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই।

বৃহস্পতিবার সরেজমিন দেখা যায়, পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় ঈশ্বরদীর সাঁড়া ইউনিয়নের আড়মবাড়িয়া, গোপালপুর গ্রামের কয়েকটি স্থানে ব্লকের বাঁধের উপর দিয়ে পানি উপচে লোকালয়ে প্রবেশ করেছে। গোপালপুর গ্রামের সাইদুল মল্লিকের বাড়ি ও দোকানে, আরজু এবং ইসরাইলের বাড়ির আঙ্গিনায় পানি প্রবেশ করেছে।

চরাঞ্চলে কৃষকের আখ ক্ষেত নদীর পানি প্রবেশ করেছে। এতে তেমন তির সম্ভাবনা নেই বলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ জানিয়েছেন।

Previous articleরংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৪টি হাইফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা হস্তান্তর
Next articleতাহিরপুরে পরিচ্ছন্ন এবং হাত ধোঁয়া উন্নতকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।