জয়নাল আবেদীন: পদ-পদবি পরিবর্তন ও বেতন গ্রেড উন্নীতকরণের দাবীতে রংপুরে মাঠ প্রশাসনের কর্মচারীরা টানা কর্মবিরতিতে নেমেছেন। মঙ্গলবার দিনব্যাপী কর্ম-বিরতির কারণে প্রশাসনের নানা গুরুত্বপূর্ণ দাপ্তরিক কাজ বন্ধ ছিল। ফলে অনেক সেবা প্রত্যাশীরা দপ্তরগুলোতে এসে ঘুরে গেছেন। সাধারণ মানুষের ভোগান্তির পাশাপাশি অর্থ ও কর্মঘন্টা নষ্ট হয়েছে। জটিলতা নিরসন করে দপ্তরগুলোতে জনসেবা নিশ্চিতের দাবী জানিয়েছেন ভূক্তভোগী সেবাগ্রহীতারা।

রংপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) রংপুর সদর কার্যালয়ের শতাধিক কর্মচারী সকাল থেকে অবস্থান নেন। তারা অভিযোগ করেন, গত ২০২১ সালের ২৪ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রী এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে ১৩ থেকে ১৬ গ্রেডভ‚ক্ত কর্মচারীদের পদ-পদবি পরিবর্তন ও বেতন গ্রেড উন্নীতকরণের প্রস্তাব দেয়া হয়। কিন্তু প্রশাসনিক জটিলতা দেখিয়ে প্রধানমন্ত্রী অনুমোদিত পদ-পদবি পরিবর্তন ও বেতন গ্রেড উন্নীতকরণ আটকে দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। ফলে এইসব গ্রেডে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যোগ্যতা থাকা স্বত্তে¡ও একই পদে থেকে অবসরে চলে যাচ্ছেন মাঠ প্রশাসনের কর্মচারীরা।

রংপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সাধারণ শাখার কর্মচারী রোকসানা বেগম বলেন, আমরা আশ্বাসের প্রেক্ষিতে এর আগে আন্দোলন স্থগিত করা হয়। আমরা মাঠ প্রশাসনের কর্মচারীরা দক্ষতা ও সুনামের সাথে মাঠ প্রশাসনের বাস্তবায়ন করছি। ফলে প্রশাসনের সেবা আগের তুলানায় অনেক জনবান্ধব হয়েছে। আমরা স্বল্প সময়ে, হয়রানিমুক্তভাবে জনসেবা নিশ্চিত করলেও আমাদের জীবন-মান বাড়ানো কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। আমাদের যোগ্যতা থাকা স্বত্তে¡ও কোন পদন্নোতির ব্যবস্থা করা হয়নি। এই দফায় আমাদের আন্দোলন ২৪ মার্চ পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়েছে। আমাদের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশ মোতাবেক আন্দোলন চলতে থাকবে। মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর সদর ভ‚মি অফিসে গিয়ে দেখা যায়, কর্মচারীদের কর্মবিরতির কারণে অন্যান্য দিনের মত সেবাপ্রত্যাশীদের ভিড় নেই ভ‚মি অফিসে। অনেক সেবাপ্রত্যাশীরা ভ‚মি অফিসে ঘুরে যাচ্ছেন। একই অবস্থা রংপুর জেলার সকল উপজেলার ভ‚মি কার্যালয়ে।

রংপুর সদর উপজেলার মমিনপুর বানিয়াপাড়ার আব্দুল আজিজ বলেন, বোরো ধানের জমির কাজ ফেলে ভ‚মি অফিসে এসেছি জমি খারিজের কাজ করাতে। কিন্তু এখানে এসে দেখলাম কোন সেবা দেয়া হচ্ছে না। ফলে সেবা না পেয়েই ঘুরে যেতে হচ্ছে। কর্মচারীদের আন্দোলনের কারণে আমরা কেন সরকারী সেবা পাবো না। এ বিষয়টি সরকারকে বিশেষভাবে দেখা উচিত। এ ব্যাপারে রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বলেন, জেলা প্রশাসনে জরুরি কাজগুলো চলমান রয়েছে। এ বিষয়টি নিয়ে আমরা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে চিঠি লিখেছি। জনগণ যেন হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে আমাদের বিশেষ নজর রয়েছে।

Previous articleসন্ধ্যানীর সাবেক সভাপতি ডাঃ আতাউল হক টিপুর মৃত্যু
Next articleতেলের বোতলের দাম মুছতে ঘষা, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।