জি.এম.মিন্টু: কেশবপুর পরকীয়া করে স্বামীর বাড়িতে এসে দ্বিতীয় স্ত্রী ২ সন্তানের জননী বিপাকে পড়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

থানার অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, কেশবপুর উপজেলার সদর উপজেলার খতিয়াখালী গ্রামের মোমিন মোড়ল এর স্ত্রী হাসানপুর গ্রামের মৃত নজরুল মালীর মেয়ে ২ সন্তানের জননী বিউটি খাতুনের (৩৪) এর সাথে খতিয়াখালী গ্রামের আরশাদ আলী মোড়লের ছেলে সেলিম হোসেনের সাথে দির্ঘ ৫/৬ বছর ধরে পরকীয়া চলছিল। তারই জের ধরে গত তিন মাস আগে সেলিম হোসেন বিউটিকে দিয়ে তার প্রথম স্বমী মোমিনকে তালাক করিয়ে বিউটি খাতুনকে বিয়ে করে । বিয়ের পর থেকে বিউটিকে নোয়াপাড়ায় একটি ঘর ভাড়াকরে দেয় স্বামী সেলিম হোসেন। সেখানে স্বমী সেলিম সপ্তায় এক দুই বার যাওয়া আসা করত এক পর্যায় সেলিম স্ত্রী বিউটির কাছে দুই লক্ষ টাকা ও সাংসারিক বিভিন্ন জিনিসপত্র দাবি করতে থাকে, বাবার বাড়ির ভাই,বোনেরা গরিব থাকার কারনে টাকা পয়সা জিনিসপত্র দিতে না পারায় হটাৎ সেলিম তার দ্বিতীয় স্ত্রী বিউটির কাছে যাওয়া বন্ধকরে দেয়।

স্ত্রী বিউটি খাতুন কোন হদিস না পেয়ে গত ২৮/০৮/২০২২ শনিবার স্ত্রীর অধিকার নিয়ে তার স্বামী সেলিমের বাড়িতে আসে একদিন পর স্বমী সেলিম তাকে বেধড়ক মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। বিউটি কোন কুল কিনারা না পেয়ে স্থানীয় লোক জনের সহয়োগিতায় কেশবপুর হাসপালে চিকিৎসা নিয়ে থানাতে গিয়ে স্বামী সেলিম হেসেন (৩৫) শশুর আরশাদ আলী মোড়ল (৫৫)ও শাশুড়ী আনোয়ারা বেগম (৫০) কে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয় সেলিম হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান বিউটিকে বিয়ে করেছিলাম আবার তালাকও দিয়েছি। এ বিষয় কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ বোরহান উদ্দিন বলেন অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Previous articleপাবনায় সুজন হত্যার বিচার দাবীতে নোয়াখালীতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ
Next articleটাঙ্গাইলে পায়ুপথে বাতাস ও লাঠি ঢুকিয়ে সপ্তম শ্রেণির মাদ্রাসাছাত্রকে হত্যা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।