লক্ষ্মীপুরে অগ্নিকাণ্ডে বসতঘরসহ ১৮টি প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই

তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ভবানিগঞ্জ বাজারে ও রায়পুর পৌর শহরের পোষ্ট অফিসের পাশে অগ্নিকাণ্ডে বসতঘরসহ ১৮টি প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই হয়েছে। মঙ্গলবার ভোরে পৃথক দুইটি স্থানে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। উভয় স্থানেই শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ফায়ার সার্ভিস ও ব্যবসায়ীরা জানায়। এসময় সদর উপজেলার ভবানিগঞ্জ বাজারে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় প্রায় দেড় কোটি টাকা ও রায়পুর পৌর শহরের পোষ্ট অফিসের পাশে অগ্নিকান্ডে প্রায় ৪০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ব্যবসায়ীরা জানান। ভবাণিগঞ্জ বাজারে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা জানান, ভোরে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনে ১০টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এসময় দিদার হোসেন ও আলী হোসেনের ঔষধের দোকান, আনোয়ার হোসেনের ইলেক্ট্রিক দোকান, রাফিজা বস্ত্র বিতান, জসিম টেইলার্স, স্মৃতি বস্ত্রালয়, জননী শাড়ি ঘর, ফারুকের কীটনাশক দোকান ও জননী হার্ডওয়ার এর দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এতে ব্যবসায়ীদের প্রায় দেড় কোটি টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়। এদিকে রায়পুরে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা জানায়, ভোরে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে দুইটি বসতঘর ও ৬টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুন লাগে। আগুনের লেলিহান শিখা দ্রুত ডাঃ ইসমাঈল ভূঁইয়ার দুইটি বসতঘর ও ঔষধের দোকান, ব্যবসায়ী রুহুল আমিনের দোকানঘর, নুরুল ইসলামের চা ও কনফেকশনারী দোকান, আলী আহাম্মদের মুদি দোকান, আবু তাহেরের মুদি দোকান ও দেনায়েতপুর যুব কল্যাণ সমিতি কার্যালয়ে ছড়িয়ে পড়ে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় দেড় ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় অগ্নিকান্ডে ব্যবসায়ীদের নগদ অর্থ ও মালামালসহ প্রায় ৪০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ব্যবসায়ীরা দাবী করেন। লক্ষ্মীপুর ফায়ার সার্ভিস এর ডিএডি ইকবাল হোসেন জানায়, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। ক্ষয়-ক্ষতি নিরূপণে কাজ চলছে বলে জানান তিনি।