সুজন মহিনুল: নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলায় ধানক্ষেত থেকে হাফিজুল ইসলাম (৫৫)নামে অটোরাইস মিলের ম্যানেজারের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মঙ্গলবার(১ জুন) জেলার মর্গে ময়না তদন্ত করেছে।হত্যার শিকার হাফিজুল ইসলাম জলঢাকা পূর্ব চেরেঙ্গা কাজী পাড়া মহল্লার মৃত তালেব আলীর ছেলে।
এর আগে সোমবার(৩১ মে)রাত ১১টার দিকে জলঢাকা পৌর শহরের চেরেঙ্গার একটি ধান ক্ষেত থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। ধারনা করা হচ্ছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা এই হত্যাকান্ড ঘটিয়ে পালিয়ে গেছে। লাশ উদ্ধারের সময় হাফিজুল ইসলামের লুঙ্গিতে বাধানো নগদ দুই লাখ ৮৫ হাজার ৩০৯ টাকা ও ২টি মোবাইল ফোন পেয়েছে পুলিশ।
এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এক নারীসহ ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এরা হলেন পূর্ব চেরেঙ্গা কাজী পাড়া মহল্লার রুবেল হোসেন (৩০) ও তার স্ত্রী পারভীন আক্তার(২৫), মেরাজুল ইসলাম (২০), মিশু মিয়া (২৫)।
জানা যায়, জলঢাকা জাহান অটোরাইস মিলের ম্যানেজার ছিলেন হাফিজুল ইসলাম। সোমবার রাত আটটার দিকে তিনি রাইস মিল থেকে বেরিয়ে নিজবাড়ী ফিরছিলেন। ওই সময় দুর্বৃত্তরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গলা কেটে হত্যার পর একটি ধান ক্ষেতে ফেলে পালিয়ে যায়। পথচারীরা তা দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দিলে রাত ১১ টায় পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।
স্থানীয় ও নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, একটি দোকানঘর ক্রয়-বিক্রয়কে কেন্দ্র করে এ হত্যাকান্ড ঘটতে পারে। তারা আরও জানায়, ঘটনার দিন ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মাথায় এবং গলায় আঘাত করে তাকে নৃশংস ভাবে হত্যা করা হয়।
জলঢাকা থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান এ ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েেছ।

Previous articleজলঢাকায় ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু
Next articleটাঙ্গাইলের কালিহাতীতে নিম্নমানের উপকরণে ভবন নির্মানের অভিযোগ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।