আবুল কালাম আজাদ: টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার গান্ধিনা লায়ন ফেরদৌস আলম ফিরোজ কলেজের নতুন ভবন নির্মানে নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহারের অভিযোগ ওঠেছে। ঠিকাদার ও কলেজ অধ্যক্ষের যোগসাজশে নিম্নমানের ইট ও খোয়া দিয়ে নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার গান্ধিনা লায়ন ফেরদৌস আলম ফিরোজ কলেজর ভবন নির্মাণ কাজ পায় মেক্স বিল্ডার্স নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ওই প্রতিষ্ঠানের ঠিকাদার আলী আকবর ও কলেজের অধ্যক্ষ শাহজাহান কবির মিলে ভাটা থেকে নি¤œ-মানের ভাঙ্গানো খোয়া ক্রয় করে ছাদ ঢালাইয়ের কাজ করার জন্য প্রস্তুত করছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, নিম্নমানের পরিত্যাক্ত খোয়া ভবনের পাশে স্তুপ করে রাখা হয়েছে। সাইটের দায়িত্বে থাকা আঃ আজিজ জানান, এখানে কোন খোয়া ভাঙ্গানো হয়না, দূর থেকে ভাঙ্গানো খোয়া আনা হয়। কলেজের স্যার এখানে দেখা শুনা করেন। তিনশত কার্য্য দিবসের মধ্যে কাজ শেষ করার কথা উল্লেখ করে গত বছরের মে মাসের ২৭ তারিখে টিকাদারী প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স বিল্ডার্সকে কার্যাদেশ দেওয়া হয়, যার মূল্য ৮৫ লাখ টাকা। শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ভবনটি নির্মিত হচ্ছে।

ঠিকাদার আলী আকবর জানান, স্তুপ করে রাখা খোয়া গুলো আগের ভাঙ্গানো। তিনি নি¤œ-মানের ইট খোয়ার কথা অস্বীকার করেন।

কলেজটির অধ্যক্ষ শাহজাহান কবির তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ভাটা থেকে ইট এনে ভাঙ্গনো হয়। কোথায় ভাঙ্গানো হয় এ প্রশ্নের কোনও উত্তর তিনি দেননি।

কলেজটির প্রতিষ্ঠাতা লায়ন ফেরদৌস আলম ফিরোজ বলেছেন নিম্নমানের উপকরণের বিষয়ে আমার জানা নেই, নি¤œ-মানের কাজ হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা শিক্ষা প্রকৌশলী কার্যালয়ের উপ-সহকারি প্রকৌশলী মনোজ পাইক এ বিষয়ে বলেন, এখানে কোনও নিম্নমানের ইট ও খোয়া ব্যবহার করা হচ্ছে না। করোনা মহামারির ছুটিসহ সকল

সরকারি ছুটি কাজ শেষ করার মেয়াদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। এ ধরণের প্রকল্পে তহবিল সংকটের কারণে কাজের অগ্রগতি কম হয় এং এ কারণে মেয়াদও বাড়াতে হয়।

Previous articleনীলফামারীতে ধানক্ষেত থেকে মিল ম্যানেজারের লাশ উদ্ধার
Next articleটাঙ্গাইলে চিকিৎসকের অবহেলায় বীর মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুর অভিযোগ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।