বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মুলাদীতে লঞ্চঘাট বন্ধ করার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। একটি মহল উপজেলার গাছুয়া ইউনিয়নের ফরাজি বাড়ী লঞ্চঘাট বন্ধ করার চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

প্রাথমিক পর্যায়ে লঞ্চঘাটটির নাম পরিবর্তনের আবেদন এবং পরবর্তীতে একেবারে বন্ধ করার চেষ্টা চলছে। এতে স্থানীয়দের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। জানা গেছে, ঢাকা-মুলাদীগামী যাত্রীদের সুবিধার্থে গাছুয়া ইউনিয়নের ডুমুরীতলা এলাকায় ফরাজি বাড়ি লঞ্চঘাট স্থাপন করা হয়। সেখানে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) একটি পল্টুন দেয়। বর্তমানে সেখানে নিয়মিত লঞ্চ যাত্রীদের উঠানামা করা হচ্ছে।

লঞ্চঘাটের ইজারাদার শাহিন ফরাজী জানান, উপজেলার বাঁশতলা বাজার থেকে চরডুমুরীতলা নদীর পাড় পর্যন্ত রাস্তাটি পাকা হওয়ায় অনেক যাত্রী হরিনাথপুর হয়ে লঞ্চে যাতায়াত করতো। এতে যাত্রীরা দুর্ভোগের শিকার হয়। দুর্ভোগ নিরসনে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে চরডুমুরীতলা এলাকায় ফরাজি বাড়ি লঞ্চঘাট নামে একটি ঘাটের জন্য আবেদন করি। পরবর্তীতে বিআইডব্লিউটিএ সেখানে ওই নামে লঞ্চঘাট দেয়। ২০২১ সালের ২৯ ডিসেম্বর একটি পল্টুন স্থাপন করা হয়। বর্তমানে প্রতিদিন কয়েকশত যাত্রী এখান দিয়ে উঠানামা করে। লঞ্চঘাটে মুক্তিযোদ্ধা, প্রতিবন্ধী, কোরআনে হাফেজদের জন্য বিনা খরচে যাতায়াতের সুযোগ রয়েছে। পল্টুনে ফরাজি বাড়ী লঞ্চঘাট লেখা থাকায় এলাকার একটি মহল ষড়যন্ত্র শুরু করে। মঙ্গলবার রাতে কে বা কাহারা পল্টুনে ফরাজি বাড়ী লঞ্চঘাট লেখাটি মুছে দেয় এবং এলাকার লোকজনের নাম দিয়ে লঞ্চঘাটের নাম পরিবর্তনের আবেদন করেছেন। নাম পরিবর্তন না হলে তারা লঞ্চঘাট বন্ধ করার ব্যবস্থা করবে বলে হুমকি দিয়েছেন।

ডুমুরীতলা গ্রামের রেজাউল হাসান জানান, যে নামেই লঞ্চঘাট থাকুক না কেন তাতে কোনো অসুবিধা নেই। কিন্তু ষড়যন্ত্রের কারনে লঞ্চঘাট বন্ধ হয়ে গেলে এলাকার যাত্রীদের দুর্ভোগে পরতে হবে।

Previous articleরংপুরে আগুন পোহাতে গিয়ে ২ বছরে প্রাণ গেছে ২৫ জনের
Next articleমুলাদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ৫
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।