মিজানুর রহমান বুলেট: পটুয়াখালীর কুয়াকাটাসংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে এক ট্রলারে ৩৫ মণ ইলিশ ধরা পড়েছে। কুয়াকাটা সংলগ্ন লতাচাপলী ইউনিয়নের খাজুরা গ্রামের ট্রলার মালিক শাখাওয়াত হোসেনের এফবি মায়ের দোয়া ট্রলারে গত ৭ দিনে ইলিশগুলো ধরা পড়ে। আজ বুধবার সকাল ১১ টার দিকে কলাপাড়া উপজেলার মৎস্য বন্দর আলীপুর ঘাটে ফিরে মাছগুলো ১০ লাখ টাকায় বিক্রি করেন।

ট্রলার মালিক শাখাওয়াত হোসেন বলেন, ৭ দিন আগে ১৮ জেলেকে নিয়ে মাছ ধরতে সাগরে যায় তার ট্রলারটি। আজ (বুধবার) ৩৫ মণ ইলিশ নিয়ে ঘাটে ফিরে এসেছে। এরমধ্যে বড় সাইজের ইলিশ তিন মণ, মাঝারি সাইজের পাঁচ মণ, ছোট সাইজের ইলিশ পেয়েছেন সাঁতাশ মণ। এছাড়াও বিভিন্ন প্রজাতির কিছু ছোট মাছ পেয়েছেন। মাছগুলো ১০ লাখ টাকা বিক্রি হয়েছে।

ট্রলারের মাঝি এমাদুল মিয়া বলেন, ৩৫ মণ মাছ বড় বা মাঝারি সাইজের হলে অন্তত ২০ লাখ টাকা বিক্রি হতো। মাছের সাইজ ছোট থাকায় ১০ লাখ টাকা হয়েছে। তারপরও বেশি মাছ ধরা পড়ায় ট্রলারের জেলেরাও সবাই খুশি।
তবে অধিকাংশ ট্রলারের জেলেরা কাঙ্ক্ষিত ইলিশ পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন মৎস্যবন্দর আলীপুরের অন্যতম ব্যবসায়ী আবুল হোসেন কাজী।

তিনি বলেন, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে গত মাসে বঙ্গোপসাগরে অনেক ট্রলার দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। অনেক জেলে মারাও গেছেন। এখনো বেশ কয়েকজন জেলে নিখোঁজ রয়েছেন। এরপর আবহাওয়া পরিস্থিতি ভালো হওয়ায় জেলেরা আবার মাছ ধরতে সাগরে যান। তবে সেভাবে আশানুরূপ ইলিশ পাচ্ছেন না জেলেরা। আগামীকাল থেকে আবহাওয়া আবার বৈরী হওয়ার আশংকা রয়েছে। যার কারণে সমুদ্র থেকে ট্রলারগুলো ঘাটে ফিরতে শুরু করেছে।

Previous articleভূরুঙ্গামারীতে ভুয়া কাস্টমস কর্মকর্তা স্থানীয় জনতার হাতে আটক
Next articleরংপুরের কেন্দ্রীয় দখিগঞ্জ শ্বশ্মানের প্রধান রাস্তার নির্মাণ কাজ শুরু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।