বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ীতে ভাবির সাথে পরিকীয়া সম্পর্ক জেনে ফেলায় বড় ভাই বশিরকে খুন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাই ওয়াসিমের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওয়াসিমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টেবর) দুপুরে ওয়াসিমকে মুন্সীগঞ্জ আদালতে হাজির করা হয়। তিনি মুন্সীগঞ্জ আদালতের বিচারক অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাজী কামরুল ইসলামের কাছে স্বীকারমূলক জবানবন্দী দেন। এর আগে বুধবার বিকেলে নারায়নগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে টঙ্গীবাড়ী থানার এসআই মো. আল-মামুন ও মিনারুল কাজী।

ওয়াসিমের স্বীকারমূলক জবানবন্দির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কোর্ট ইন্সপেক্টর জামাল উদ্দিন।

ওয়াসিম টঙ্গিবাড়ী উপজেলার কান্দাপাড়া গ্রামের আমির হোসেন বেপারীর ছেলে।

টঙ্গিবাড়ী থানা এসআই আল মামুন জানান, আসামি ওয়াসিম তার আপন বড় ভাই বশিরের বৌয়ের সাথে পরকীয়ায় করে আসছিলেন। এ ঘটনা তার ভাই বশির জেনে ফেলায় তাকে খুন করে ওয়াশিম। গত ২৬ জুলাই ভোরে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয় বশির। ২৮ জুলাই তারিখে নারায়ণগঞ্জের আলী টেক এলাকার ধলেশ্বরী নদী হতে বস্তাবন্দী অবস্থায় বশিরের লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় মৃত বশিরের চাচা বাবুল অজ্ঞাতপরিচয় আসামি করে টঙ্গীবাড়ী থানায় মামলা করলে আসামি ওয়াসিম আত্মগোপন করেন। পরে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে তাকে নারায়নগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকা হতে গ্রেফতার করা হয়।

এ ব্যাপারে ওই এলাকার বেতকা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ইউপি সদস্য নুর নবী বলেন, নিহত বশির শ্রমিকের কাজ করতেন। তার ছয় বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে। মেয়েটা স্থানীয় একটি মাদরাসায় পড়ে। ওয়াসিমের সাথে তার ভাবির পরকীয়া সম্পর্ক ছিল।

এ বিষয়ে টঙ্গীবাড়ী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজিব খান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আসামিকে গ্রেফতার করে মুন্সীগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়েছে। তিনি ১৬৪ ধারায় দোষ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন।

Previous articleরিজার্ভের টাকা কেউ চিবিয়ে খায়নি তবে গিলে খেয়েছে: মির্জা ফখরুল
Next articleদাবি না মানলে ২১ নভেম্বর থেকে রেল অবরোধের ঘোষণা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।