শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
Homeশিক্ষারাবি শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের নির্যাতন ও হত্যার হুমকির প্রতিবাদে বিক্ষোভ

রাবি শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের নির্যাতন ও হত্যার হুমকির প্রতিবাদে বিক্ষোভ

মাসুদ রানা রাব্বানী: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী কৃঞ্চ রায়কে ছাত্রলীগের মারধর ও হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টার দিকে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের আয়োজনে রাবির রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর একাডেমির ভবনের দক্ষিণে এই মানববন্ধন হয়।

মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা জানান, একজন ছাত্রের অধিকার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ায় তার জন্য হলে একটি সিট বরাদ্দ থাকা। সে নিয়ম অনুয়ায়ী সেই সিট পেয়ে হলে উঠে। কিন্তু ছাত্রলীগের নেতারা তাকে শিবির আখ্যা দিয়ে মারধর করে গুরুতর আহত করে। পরে তাকে হত্যারও হুমকি দেওয়া হয়। এভাবে বিশ্ববিদ্যালয় বা শিক্ষাঙ্গণ চলতে পারে না। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের শৃঙ্খলা কমিটি আছে, সেই কমিটির যা কাজ তা বাস্তবায়ন করুন।

বিভিন্ন সময়ে ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতির নেতারা সিট বাণিজ্যসহ নানান ভাবে হয়রানি ও মারধর করে। হলে থাকায় তারা মিছিল মিটিং এ যেতে বাধ্য করে ফলে শিক্ষার সুষ্ট পরিবেশ থাকে না। তাই এধরনের কাজ থেকে বিরত থাকবে ও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী কৃঞ্চ রায়কে মারধর ও হত্যার হুমকিদাতাদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি জানান তারা।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কাজী মামুন হায়দার বলেন, ‘ক্যাম্পাস হচ্ছে শিক্ষার্থীদের জন্য নিরাপদ জায়গা। কিন্তু শিক্ষার্থী ও আমরা ক্যাম্পাসে সব থেকে অনিরাপদ। মেয়েদেরও নির্যাতন করে বিবস্ত্র অবস্থায় ভিডিও করা হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্ব র‍্যাংকিং নিয়ে চিন্তা করছি কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা দিতে পারছি না। কৃষ্ণ রায়ের ওপর অমানবিক অত্যাচার করা হয়েছে। প্রায় মৃতের মতো অবস্থা তার। তার বাবা নেই, অসহায় পরিবার থেকে উঠে আসা। সে এ নির্যাতনের চিত্র ভুলবে কীভাবে? আমরা এর স্থায়ী সমাধান চাই, না হলে আমাদের আন্দোলন আরও তীব্র হবে।’

লোক প্রশাসন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক স্বপ্নীল রহমান বলেন, ‘এমন ঘটনা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়কে সুষ্ঠুভাবে চলতে না দেওয়ার একটি অশুভ চক্রের কাজ। এমন ন্যক্কারজনক কর্মকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিন। তাহলে দেখা যাবে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে এমনটা আর ঘটবে না। বিশ্ববিদ্যালয়ে যেন আর কোনো কৃষ্ণ রায় নির্যাতন না হয় প্রশাসনের কাছে সেই দাবি জানাচ্ছি।’

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আল-মামুন বলেন, ‘ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ডে হলগুলোতে শিক্ষার্থীদের বসবাসের উপযোগিতা হারাচ্ছে। নিয়মিত সব হলে নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কিছুই করতে পারছে না। সাধারণ শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে থাকার পরিবেশ নাই। ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড না থামলে আরও কঠোর অবস্থানে যাবো।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলে কৃষ্ণ রায়কে শিবির ট্যাগ দিয়ে আটকে রেখে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে অত্র হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি, সম্পাদকসহ কয়েকজন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী ছাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী। জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ও হল প্রাধ্যক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগও দিয়েছেন তিনি।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments