বৈদ্যেরবাজার-চৌরাস্তা রোডে যানজটের ভোগান্তি

গিয়াস কামাল: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার ব্যস্ততম রাস্তা হলো সোনারগাঁ থানারোড। প্রতিদিন এ রাস্তা দিয়ে হাজার হাজার অফিস, আদালত, স্কুল কলেজ, মসাজিদ মাদ্রাসা, ব্যবসায়ী, চাকরীজীবী, সরকারী-বেসরকারী কর্মচারী, হাট- বাজারের মালামাল, কলকারখানার কাচাঁমাল, তৈরিকৃত সরবরাহকৃত মালামালসহ বহু মানুষ যাতায়াত করে। কিন্তু বর্তমানে যানজটের কারণে মানুষ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে গন্তব্য স্থানে পৌছাতে পারছে না। সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ, সোনারগাঁ থানা, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, উপজেলা সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস, উপজেলা ভূমি অফিস, উপজেলা প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর, উপজেলা খাদ্য গুদাম, সোনালী ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, কৃষি ব্যাংকসহ বেশ কয়েকটি সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে যাতায়াতের জন্য এ রাস্তাটি ব্যবহার করতে হয়। কিন্তু বর্তমানে জনগণের ভোগান্তির আরেক নাম সোনারগাঁ থানা রোড। প্রতিদিনই সময় অসময়ে দীর্ঘক্ষণ ধরে লেগে থাকে এ যানজট । উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে অনেক মুমূর্ষ রোগী আসে। উন্নত চিকিৎসার জন্য জরুরী ভিত্তিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাতপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় রোগিদের। কিন্তু যানজটের কারণে সময়মতএ্যাম্বুলেন্স নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পৌছাতে না পাড়ার কারণে অনেক রোগী এ্যাম্বুলেন্সে থেকে পথেই মারা যায়। পথচারী বাদল ইসলাম বলেন, এ রাস্তাটি প্রশস্ততা কম হওয়া আমান কোম্পানীর, ফ্রেশ কোম্পানীর বড় বড় লড়ি, ট্রাক ও ভাড়ী যানবাহন সকাল থেকে দিনব্যাপি পর্যন্ত চলাচল করে । এছাড়াও সিএনজি, অটোরিক্সা, অটো ও বিভিন্ন যানবাহনের বেপরোয়া ভাবে চলাচলের ফলে রাস্তাটি সবসময় যানজট লেগে থাকে। রাস্তার পাশের ফুটপাত প্রভাবশালী মহলের দখলের কারণে রাস্তায় আরো বেশি যানজট সৃষ্টি হয়। আরেক পথচারি মামুন ইসলাম বলেন, মোগরাপাড়া চৌরাস্তা থেকে বৈদ্যের বাজার পর্যন্ত বিভিন্ন পাইকারী দোকান ও খুচরা দোকারদাররা অনেক সময় রাস্তার মধ্যে গাড়ি রেখেই চাল, ডাল, মুদি মাল, পিয়াজ-আদা রসুন, রড, সিমেন্টসহ বিভিন্ন মালামাল উঠানো নামানোর কাজ করে। কোন প্রকার নিয়মের তোয়াক্কা করে না। যার ফলে রাস্তায় অবিরত যানজটের সৃষ্টি হয়। তাই অনেক বিজ্ঞ জনেরা বলেন, যদি এসব মালামাল দিনে লোড আনলোড না করে রাতে আনলোড করলে এতো যানজট হত না। অনেক সময় ভোগান্তিতে পড়ে অনেক অফিসগামি মানুষ ও স্কুলগামি শিক্ষার্থীরা। দ্রুত এ যানজট থেকে উত্তোরণের উপায় বের করা জরুরী বলে তারা মতামত দেন।

থানা পুলিশ যানজট নিরসনে কাজ করে তবে সেটা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম। তবে এ যানজট সমস্যার সমাধানে সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে বলে মনে করেন স্থানীয়রা।