বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগরের কাইতলা উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম আসলাম মৃধার বিরুদ্ধে দুর্নীতি, মাদকসেবন, ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে তার অপসারণ ও অনাস্থা জানিয়েছেন ইউপি সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে পরিষদের ১২ জন সদস্যের মধ্যে ১১ সদস্য উপস্থিত হয়ে তার অপসারণের দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৮টি ওয়ার্ডের পুরুষ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের তিন নারী ইউপি সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

উপস্থিত ইউপি সদস্যরা হলেন- মো. অলিউল্লাহ, ২নং ওয়ার্ডের বাছির মোল্লা, জহিরুল ইসলাম, ফোরকান আহমেদ, জাহাঙ্গীর আলম, মোহাম্মদ লিটন, কামাল মিয়া, লিলি বেগম, আম্বিয়া বেগম ও দোলেনা বেগম।

২নং ওয়ার্ড সদস্য বাছির মিয়া বলেন, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এম আসলাম মৃধার নিজে মাদকাসক্ত ও মাদক বেচাকেনা করেন। এ ছাড়া তিনি টিআর কাবিখার টাকা আত্মসাৎ করেন। জন্ম-মৃত্যু সনদ প্রদানেও তিনি অতিরিক্ত টাকা নেন। ৯নং ওয়ার্ড মেম্বার ও তিন নারী মেম্বার চেয়ারম্যানকে এসব বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি লিলি বেগম নামের এক নারী মেম্বারকে জুতাপেটা করেন। পরিষদের টাকা আত্মসাৎসহ বিভিন্ন অনিয়মের বিরুদ্ধে আমরা জেলা প্রশাসকের বরাবর অভিযোগ জানিয়েছি। এ ছাড়া আমরা সব ইউপি সদস্য সভা করে অর্থ আত্মসাৎ ও অশালীন কাজের বিরুদ্ধে অপসারণ এবং অনাস্থা প্রদানের রেজুলেশন করেছি।

সংবাদ সম্মেলনে নারী ইউপি সদস্য লিলি বেগম বলেন, চেয়ারম্যানকে আমাদের বরাদ্দের বিষয়ে যখন জিজ্ঞাস করেছিলাম, তখন তিনি আমাকে জুতাপেটা করেন। এ সময় আমার সঙ্গে ২নং ওয়ার্ড সদস্য ছিলেন। আমি তার অপসারণ দাবি করছি।

Previous articleখেলার মাঠে আর হাট বসবে না: তাপস
Next articleদেশে-বিদেশে গণতন্ত্রবিরোধী অপশক্তি এখনো সক্রিয়: সেতুমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।