শাহীন মাহমুদ: কক্সবাজারের বিভিন্ন স্থান থেকে পৃথক আভিযান চালিয়ে ১১৬ লিটার চোলাই মদসহ ৭ জন নারী মাদক পাচারকারীকে আটক করেছে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর (ডিএনসি)।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে লিংক রোড ও রামু বাইপাস এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, পরিদর্শক জীবন বড়ুয়ার নেতৃত্বে সকাল ৭টায় কক্সবাজার সদরের লিংক রোড় এলাকা থেকে বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি বাইশারি ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের মংপ্রু মারমার স্ত্রী মাওয়াই মারমা (৩৫), কক্সবাজার পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের টেকপাড়া এলাকার মৃত চমা রাখাইন এর মেয়ে উমি রাখাইন ও রাঙ্গামাটি কাউখালি থানার কমলপতি ইউনিয়ন ৪ নং ওয়ার্ডের প্যারাইজ পাড়ার মৃত উখ্যামং মারমা এর মেয়ে অংমাচিং মারমা (২২) কে ৫৬ লিটার চোলাই মদসহ আটক করা হয় ।

এরপর উপ পরিদর্শক মোঃ তায়রীফুল ইসলামের নেতৃত্বে অপর এক অভিযানে রামু উপজেলার চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক থেকে চকরিয়া হারবাং ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড শান্তি নগর এলাকার মৃত আবু তাহের এর স্ত্রী বলুয়ারা (৩৮) ও বান্দরবান লামা থানার আজিজ নগর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের আবদুল মোতালেব এর স্ত্রী সুফিয়া বেগমকে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ১৫ লিটার করে ৩০ লিটার চোলাই মদ পাওয়া যায়।

একই দিন আরেকটি বিশেষ অভিযানে উপ পরিদর্শক কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে সকালে রামু বাইপাস সিটিপার্ক কমিউনিটি সেন্টারের সামনে চট্রগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে অভিযান চালিয়ে বান্দরবান লামা আজিজনগর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড হেডম্যান পাড়ার সৈয়দ আহম্মদ এর মেয়ে মোছা : ছালমা (৩৫) ও একই এলাকার মৃত আবুল হোসেন এর স্ত্রী মোছা: আছিয়া বেগম (৪০) আরো ৩০ লিটার চোলাই মদসহ আটক করা হয়।

এই ঘটনায় আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব নিয়ন্ত্রণ আইনে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি ও রামু থানায় পৃথক দুটি নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়।

কক্সবাজারের মাদকদ্রব নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সোমেন মন্ডল মাদক বিরোধী এই অভিযান ভবিষ্যতেও চলমান থাকবে বলে জানান।