অতুল পাল: পটুয়াখালীর বাউফলের চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জাতীয় সংসদের সরকারি প্রতিষ্ঠান কমিটির সভাপতি, সাবেক চীফ হুইপ আ.স.ম ফিরোজ এমপির বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য দিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে বিক্ষুদ্ধ হয়ে চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা নৌকার প্রার্থীকে বয়কট করে সতন্ত্র প্রার্থীকে সমর্থন দিয়েছেন।

আজ শুক্রবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি মো.বাবুল হাওলাদারের সভাপতিত্বে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলে কয়েক হাজার দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারন মানুষ অংশ নিয়ে ওই ঘোষণা দেন। বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. আবদুর রব, ইউপি সদস্যদের পক্ষে মো. সাহবুদ্দিন ব্যাপারী, চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মো.আলমগীর সরদার, সাধারন সম্পাদক মো.সিদ্দিকুর রহমান, কৃষকলীগ সভাপতি হানিফ হাওলাদার, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি মো. মোস্তফা ফকির, শ্রমিক লীগ সভাপতি রহিম মোল্লা, ছাত্রলীগ সভাপতি মো. নাসির উদ্দিন প্রমূখ। এসময় বক্তারা বলেন,স্থানীয় এমপি বাউফল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ.স.ম ফিরোজ নির্বাচন প্রসঙ্গে নৌকার প্রার্থী আমির আলী হাওলাদারের সাথে একান্তে ফোনালাপকালে দিকনির্দেশনা মুলক উপদেশ দিয়েছিলেন। এমপি মহোয়দয়ের সেই দিকনির্দেশনামুলক কথাবার্তা মোবাইলে রেকর্ড করে নৌকার প্রার্থী আমির আলী অপপ্রচারে লিপ্ত হন। যা নিয়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় উদ্দেশ্যমুলক সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এঘটনায় চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। ওই অপ্রচারের প্রতিবাদ জানিয়ে আমির আলীকে চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি পদ থেকে বহিস্কারের দাবি করা হয় এবং ২১ জুনের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তাকে বয়কট করে সতন্ত্র প্রার্থী মো. এনামুল হককে সমর্থন দেয়া হয়। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের নির্বাচনে আমির আলী হাওলাদার নৌকার প্রার্থী হয়েও সতন্ত্র প্রার্থী এনমুল হকের কাছে প্রায় ৩ হাজার ভোটের ব্যাবধানে পরাজিত হন। এবারের নির্বাচনে চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগ প্রার্থী তালিকায় বর্তমান চেয়ারম্যান এনামুল হক ও আমির আলীর নাম চ’ড়ান্ত করে কেন্দ্রে পাঠালে বর্তমান চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থীর তোকমা লাগিয়ে আমির আলীকে পূণরায় নৌকার প্রার্থী করা হয়। চন্দ্রদ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান ও সতন্ত্র প্রার্থী এনামুল হক বলেন, গত নির্বাচনে আমি দলের মনোনয়ন চাইনি। সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করেছি। চন্দ্রদ্বীপের মানুষের ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। বিগত পাঁচ বছর চন্দ্রদ্বীপের মানুুষের উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করেছি। এবারে আমাকে তৃণমূল আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দিলেও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগকে ভুল বুঝিয়ে আমির আলীকে দেন। সাধারন মানুষ ও দলীয় নেতাকর্মীরা এতে বিক্ষুব্ধ হন। তারা আমাকে সর্মথন দেয়ায় আমি কৃতজ্ঞ।

Previous articleসাঁথিয়ায় বেড়া দিয়ে রাস্তা বন্ধ, দুর্ভোগে অর্ধশতাধিক পরিবার
Next articleআক্কেলপুরে ফেনসিডিল ও গাঁজাসহ দু’জন গ্রেপ্তার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।