বাংলাদেশ প্রতিবেদক: নোয়াখালীতে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রাট ও পুলিশ সেজে চাঁদাবাজির করার সময় দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

রোববার (২৭ জুন) দুপুর পৌনে ১টার দিকে চাটখিল উপজেলার বদলকোট থেকে পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজি করার সময় সোহাগ মৃধা (২০) এবং দুপুর ২টা ২০মিনিটের দিকে বেগমগঞ্জের চৌমুহনী বাজারে হকার্স মার্কেট থেকে ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে চাঁদাবাজির করার সময় মো.হাবিবুর রহমান (২১) নামে এক যুবককে আটক করে পুলিশ।

আটককৃত সোহাগ মৃধা ফরিদপুর জেলার ভাঙা উপজেলার হামিদ্দি গ্রামের মৃত খোকন মৃধার ছেলে। সে একটি কোম্পানীর মার্কেটিংয়ে চাকরি করে এবং চাটখিলের দশগরিয়া এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকে। অপরদিকে, আটককৃত হাবিব চৌমুহনী পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ডের হাজীপুর গ্রামের মো. অলিউল্লার ছেলে।

চাটখিল থানার সূত্রে জানা যায়, রোববার সকালে বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ পরিচয়ে ব্যবসায়ীদের দোকানের কাগজপত্র চেক করার নামে চাঁদাবাজি করে ওই যুবক। দুপুর পৌনে ১টার দিকে বদলকোর্ট সড়কের একটি ইলেকট্রনিক দোকান থেকে তাকে আটক করা হয়। সে ওই ইলেকট্রনিক দোকানে গিয়ে নিজেকে পুলিশ পরিচয় দেয়। পরে দোকানির কাছ থেকে ট্রেডলাইসেন্স দেখতে চাই। দোকানি ট্রেডলাইসেন্স দেখানোর পর সে জানায় এটা ডিজিটাল করা নেই এজন্য ব্যবসায়ীকে জরিমানা দিতে হবে। এ সময় ওই ব্যবসায়ী কৌশলে তাকে দোকানে বসিয়ে রেখে থানায় খবর দেয়। বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দুপুর ২টার দিকে হাবিব বেগমগঞ্জের চৌমুহনী বাজারের হাকার্স মার্কেটের কয়েকটি দোকান লকডাউনে খোলা রাখার কারণে পুলিশের এসআই, এবং কোন কোন দোকানে ম্যাজিষ্ট্রেট পরিচয়ে টাকা দাবি করলে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ কামরুজ্জামান সিকদার ও চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল ইসলাম বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে। তারা আরও জানান, আটককৃত আসামিদের বিরুদ্ধে এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। ওই মামলার আলোকে আটককৃত আসামিদের বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

Previous articleনির্মাণকাজ শেষের আগেই ভেঙে পড়ল কুয়াকাটা গার্ডার ব্রিজ
Next articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে ডোবা থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।