সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় পুরো দমে বোরো ( ইরি) ধান আবাদ শুরু হয়েছে ৷ বছরের প্রধান আবাদের নানা জাতের বোরো ধান চারা কৃষকেরা লাগাচ্ছেন ৷ গ্রামীণ মজুরদের চাহিদা দিন যেতেই আরো বাড়ছে৷ এরা দিন হাজিরার বদলে চুক্তিতে জমিতে চারা লাগাচ্ছেন ৷ এদিকে কৃষি বিভাগের প্রণোদনা কর্মসুচির সমলয়ে চাষাবাদে এরই মধ্যে প্রায় একশো বিঘা জমিতে ধান চারা লাগানো হয়েছে৷

উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে , এবারের মওসুমে উল্লাপাড়া উপজেলায় ৩০ হাজার ২৪০ হেক্টর পরিমাণ জমিতে বোরো ধান আবাদের সরকারী লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে৷ এরই মধ্যে ৪ হাজার ৪শ ১৫ হেক্টর পরিমাণ জমিতে বোরো ধানের চারা লাগানো হয়েছে৷ এর মধ্যে উফসি ধান চারা ৩ হাজার ৫শ হেক্টরে, হাইব্রিড জাতের ধান চারা ৯ শ হেক্টরে ও ১৫ হেক্টর জমিতে স্থানীয় জাতের বোরো ধান চারা লাগানো হয়েছে৷ বোরো ধান উৎপাদন সরকারী লক্ষ্যমাত্রা ১ লাখ ৩২ হাজার ৫৮০ দশমিক ১ মেট্রিক টন বলে কৃষি অফিস থেকে জানানো হয় ৷ উল্লাপাড়ায় কৃষকেরা বেশী হারে ফলনশীল ব্রি ২৯, ব্রি ৮৪, ব্রি ৮৬, ব্রি ৮৯ ,ব্রি ৯২ জাতের ধানসহ নানা জাতের বোরো ধান আবাদ করে থাকেন ৷ এবারেও এসব জাতের ধান আবাদ কৃষকেরা শুরু করছেন বলে জানানো হয় ৷ উপজেলার সব ক্#৩৯;টি ইউনিয়নের সব মাঠেই এ ধানের আবাদ করা হয়ে থাকে৷ উপজেলার সলঙ্গা , রামকৃষ্ণপুর , হাটিকুমরুল ইউনিয়নের বেশীর ভাগ মাঠে কৃষকেরা রোপা আমন ধানের আবাদ করেছিলেন৷ মাঠগুলো থেকে সে ধান কাটা প্রায় শেষ হয়ে এসেছে৷ উপজেলার সলঙ্গা, রামকৃষ্ণপুর , পূর্ণিমাগাঁতী , কয়ড়া , সদর উল্লাপাড়া ইউনিয়ন এলাকার বিভিন্ন মাঠে বোরো ধান চারা লাগানো হচ্ছে ৷ এ ইউনিয়নগুলোর অনেক মাঠে সরিষা ফসল রয়েছে৷ আর ক্#৩৯;দিন বাদেই সরিষা ফসল কৃষকদের ঘরে উঠবে ৷ জমিগুলো থেকে সরিষা ফসল তুলেই বোরো ধান আবাদ করা হবে ৷

এদিকে উপজেলার উধুনিয়া , বাঙ্গালা , পূর্ণিমাগাঁতী , বড় পাঙ্গাসী , মোহনপুর ইউনিয়ন এলাকার মাঠগুলোয় সরিষা ফসল রয়েছে৷ কৃষকেরা সরিষা ফসল তুলেই জমিতে বোরো ধান আবাদে চারা লাগাবেন৷ বোরো ধান আবাদে বেশীর ভাগ কৃষক নিজস্ব বীজতলা করেছেন৷ অনেক কৃষক বেশী হারে ফলন মেলে এমন উন্নত নতুন নানা জাতের ধানের বীজতলা করেছেন বলে জানা গেছে ৷ উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কৃষি প্রণোদনা কর্মসুচির সমলয়ে চাষাবাদে এরই মধ্যে প্রায় একশো বিঘা জমিতে বোরো ধান চারা লাগানো হয়েছে৷ উপজেলার হাটিকুমরুল ইউনিয়নের পাটধারী ব্লকে ৫০ একর জমিতে সমলয়ে চাষাবাদে নিজস্ব বীজতলা করা হয়৷ সমলয়ে চাষাবাদ এর মূল লক্ষ্য কম বয়সকালে চারা রোপণ , উৎপাদন ব্যয় কমানো, শ্রমিকের অভাব পূরণ, ফসলের ফলন বৃদ্ধি বলে জানা গেছে ৷ রাইস ট্রান্সপ্লাণ্টার মেশিনে জমিতে ধান চারা রোপণ করা হচ্ছে ৷

উপজেলার সলঙ্গা ইউনিয়নের গোজা মাঠে বোরো ধান আবাদ শুরু হয়েছে৷ কৃষক রবিউল ইসলামকে প্রায় এক বিঘা পরিমাণ জমিতে নিজস্ব বীজতলার কাটারী ভোগ ধানের চারা লাগিয়েছেন৷ প্রতিবেদককে বলেন জমিতে রোপা আমান ধানের কাটার পর সপ্তাহ দুয়েক পতিত রাখা হয়েছিল৷ এখন বোরো জাতের কাটারী ভোগ ধানের চারা লাগিয়েছেন ৷ এদিকে পূর্ণিমাগাঁতী , উল্লাপাড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন মাঠে গ্রামীণ দিন মজুরেরা এখন দিন হাজিরায় মজুরী বিক্রি করছেন না৷ এরা ছয় থেকে আট জনের দল বেধে শতক ( ডেসিমেল) চুক্তিতে জমিতে বোরো ধান চারা লাগাচ্ছেন৷ এরা প্রতি শতকে ২৫ টাকা করে নিচ্ছেন৷ এদের কাছ থেকে জানা গেছে একজন মজুর দিনে ২৮ থেকে ৩০ শতক জমিতে চারা লাগাচ্ছেন ৷ এ হিসেবে দিনে ৭ শ থেকে ৭ শ ৫০ টাকা আয় করছেন বলে জানান ৷

নাগরৌহা গ্রামের কৃষক করিম মিয়া বলেন তিনি চুক্তিতে জমিতে বোরো ধান চারা লাগাচ্ছেন ৷ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সূবর্ণা ইয়াসমিন সুমী বলেন তার বিভাগ থেকে কৃষকদেরকে এল এল পি পদ্ধতি অর্থাৎ লাইন করে ধান চারা লাগাতে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে ৷ এ পদ্ধতিতে বোরো ধান চারা লাগানো হলে ফসলটির আবাদে কৃষকদের সব দিক থেকেই উপকার মেলে৷ এছাড়া পাটধারী ব্লকে সমলয়ে চাষাবাদ এ তার বিভাগ থেকে দেওয়া ধানে বীজতলা করা হয়েছে ৷ সে রীজতলার চারা এখন রাইস ট্রান্সপ্লাণ্টার মেশিনে রোপণ করা হচ্ছে ৷

Previous articleবিদেশে অবস্থান করেই চাকুরি করছেন মাদ্রাসার অফিস সহকারী !
Next articleকাঞ্চন-নিপুণের ২২ প্রতিশ্রুতি
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।