বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে স্ত্রীর মর্যাদা পেতে স্বামীর বাড়িতে তিন দিন ধরে অনশন করছেন ঝর্ণা রাণী নামে এক যুবতী। ঝর্ণা রাণী রাণীশংকৈল উপজেলার লেহেম্বা ইউনিয়নের লেহেম্বা গ্রামের রাজেন্দ্রনাথ রায়ের মেয়ে।

সোমবার উপজেলার ৯ নম্বর সেনগাঁও ইউনিয়নের কানারী গৌসাইপুর গ্রামে এই অনশনের চিত্র দেখতে পাওয়া যায়।

বিয়ের ৩ মাস অতিবাহিত হলেও আইন ও হিন্দু আচার অনুসারে স্ত্রীকে স্বীকৃতি দিচ্ছেন না তার স্বামী ও স্বামীর পরিবার। তাই এই অনশন করছেন ঝর্ণা রাণী।

জানা গেছে, কানারী গোসাইপুর গ্রামের সত্যেন্দ্রনাথের ছোট ছেলে কমলাকান্তের সাথে গত বছরের ১৯ নভেম্বর হিন্দু বিবাহ হিসেবে রেজিস্ট্রি হয় কমলাকান্ত ও ঝর্ণা দম্পতির। বিয়ের পর থেকেই কমলাকান্তের বড় ভাই জ্যোতিষের কুপরামর্শে ও পারিবারিক চাপে কমলাকান্ত সমস্ত যোগাযোগ বন্ধ করে দেন বলে ঝর্ণা জানান।

স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবিতে অনশনকারী ঝর্ণা রাণী জানান, কমলাকান্তের পরিবার তাকে মেনে নিচ্ছে না বাড়ির বধূ হিসেবে। আমাকে তারা মারপিট করেছে এবং কমলার বড় ভাই পীরগঞ্জ উপজেলার জুনিয়র পরিসংখ্যান কর্মকর্তা জ্যোতিষ রায় তাকে বিভিন্ন রকম হুমকিসহ অপবাদ দিচ্ছে।

এ বিষয়ে কমলাকান্তের ভাই জ্যোতিষ রায় বলেন, অনেক ভেজালে আছি দাদা। আমরা বিষয়টি আপোষ করার চেষ্টা করছি। যে টাকা যৌতুক দিয়েছিল তারা উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে আমরা জমা দিয়েছিলাম তারা টাকাটা ফেরত নিয়ে গেছে। তারপরও কেন মেয়েটা আসলো।

এ বিষয়ে সেনগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান জানান, বিষয়টি আমরা লেহেম্বা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানসহ সমাধান করার চেষ্টা করছি।

Previous articleরংপুরে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন
Next articleরংপুরের প্রবীণ রাজনীতিক ছাদেক আলীর সন্ধান দাবিতে মানববন্ধন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।