বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৭, ২০২৩
Homeসারাবাংলারাজশাহীজুড়ে হঠাৎ ঘন কুয়াশা

রাজশাহীজুড়ে হঠাৎ ঘন কুয়াশা

মাসুদ রানা রাব্বানী: কয়েকদিন থেকেই রাজশাহীতে শীত অনুভূত হচ্ছে। সকালে পড়ছে শিশির। তবে হঠাৎ শুক্রবার ভোরে দেখা মিলেছে ঘন কুয়াশার। সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত কুয়াশায় ঢেকে ছিল চারপাশ। তবে সকাল ৯টার দিকে কুয়াশা সরিয়ে দেয় সূর্যের ঝলমলে রোদ। এই কুয়াশা শীতের আগমনী বার্তা এনেছে রাজশাহীতে।

শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) এমনই ছিলো রাজশাহী শহরের দৃশ্যপট। এখন ভোরে বেশ শীত অনুভব করছেন রাজশাহীর মানুষ। রাজশাহী আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, তিন দিন ধরে রাজশাহীর তাপমাত্রা কমছে। শুক্রবার ভোর ৬টায় রাজশাহীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পাওয়া গেছে ১৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সকাল ৯টায় তাপমাত্রা কিছুটা বেড়ে দাঁড়ায় ২২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। এর আগে বৃহস্পতিবার দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩১ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ দিন সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয় ২১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তার আগের দিন বুধবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা হয় ২১ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ দিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিলো ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শুক্রবার সকালে ঘন কুয়াশার কারণে রাজশাহীর রাস্তায় যানবাহন চলতে দেখা গেছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। ট্রেনও চলেছে একইভাবে। হালকা শীতের কারণে গায়ে গামছা জড়িয়ে কাজের উদ্দেশ্যে ছুটে যেতে দেখা গেছে শ্রমজীবী মানুষকে। ভোররাত থেকে শীত অনুভূত হওয়ায় কম্বলমুড়ি দিয়ে ঘুমাচ্ছেন অনেকেই। বৈদ্যুতিক পাখার ব্যবহারও কমেছে।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক লতিফা হেলেন বলেন, গত কয়েকদিন ধরেই রাজশাহীর তাপমাত্রা কমছে। রোজই ভোরে হালকা কুয়াশা পড়ছে। এরমধ্যে মাঝারি ধরনের কুয়াশা দেখা না গেলেও শুক্রবার সকালে হঠাৎ ঘন কুয়াশায় প্রকৃতি ঢেকে যেতে দেখা গেলো। তিনি বলেন, ‘বলতে গেলে এই কুয়াশা শীতের আগমনী বার্তা নিয়ে এলো। এখন ধীরে ধীরে শীত এগিয়ে আসবে। প্রতিদিনই তাপমাত্রা কমবে। সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ব্যবধানও কমে আসবে।’

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments