মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪
Homeসারাবাংলারংপুরের বিভাগীয় সরকারি গণগ্রন্থাকার উন্নয়নের ছোঁয়ায় এগিয়ে যাচ্ছে

রংপুরের বিভাগীয় সরকারি গণগ্রন্থাকার উন্নয়নের ছোঁয়ায় এগিয়ে যাচ্ছে

জয়নাল আবেদীন: রংপুর বিভাগীয় সরকারি গণগ্রন্থাগার উন্নয়নের ছোঁয়ায় এগিয়ে যাচ্ছে । এই গ্রন্থাগারটি ১৯৮২ সাল যাত্র শুরু করলেও ভবন উদ্বোধন হয় ১৯৯১ সালে।

তিন তলা বিশিষ্ট ভবনটি ১১হাজার৮শ১১ বর্গফুটের ভবনের ১ম তলায় রয়েছে সাধারন পাঠকক্ষ, বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার, পুরুষদের নামাজ ঘর, বাথরুম, অফিস কক্ষ। ২য় তলায় রয়েছে পত্র-পত্রিকার কক্ষ, শিশু কর্ণার, স্টোক রুম, মহিলাদের বাথরুম ও নামাজ ঘর। ৩য় তলায় রয়েছে সেমিনার কক্ষ, স্টোক রুম, প্রক্রিয়া করণ শাখা। এটি রংপুর টাউন হল ক্যাম্পাসে অবস্থিত । ১জন উপ-পরিচালকের নিয়ন্ত্রনে ১৩ জন কর্মকর্তা কর্মচারী দ্বারা পরিচালিত হয়ে আসছে। অফিস সূত্রে জানা যায়, রংপুর বিভাগীয় গণগ্রন্থাগারে বাংলা, আরবি, ইংরাজি সহ নানান জাতের ৫৫ হাজারের বেশী বই রয়েছে। একটি ইংরেজি সহ ১১ রকমের পত্রিকা রাখা হয় এখানে। এছাড়াও সাপ্তাহিক, পত্রিকা ছাড়াও কারেন্ট এ্যাফেয়ার্স, কম্পিউটার জগৎ, রহস্য পত্রিকা, সাপ্তাহিক বিজ্ঞাপণ, সরগম, উত্তরাধিকারসহ ১০ রকমের সাময়িকী।পাশাপাশি ২য় তলার স্টোরে সংরক্ষিত রয়েছে ১৯৮০ সাল হতে ২০১৭ পর্যন্ত প্রকাশি দৈনিক বাংলা, ১৯৯৭ সাল হতে ২০০০ পর্যন্ত বাংলা বাজার পত্রিকা, ২০০১ হতে বর্তমান পর্যন্ত প্রথম আলো পত্রিকা হতে বাধাঁনো বই রয়েছে যা যে কোন সময় পাওয়া যাবে। পাশাপাশি সাপ্তাহিক বিচিত্রা ১৯৮৫-৮৭ পর্যন্ত, সাপ্তাহিক রোববার ১৯৯৭-২০০৬ পর্যন্ত বাধাঁই করে সংরক্ষণ রয়েছে। রয়েছে ২০২২ সাল পর্যন্ত গেজেটের সমস্ত দলিল। যা যে কেউ যে কোন সময় গেলেই তথ্য পাবেন। ৩য় তলার স্টোরে রয়েছে বইয়ের পাশাপাশি ১০০ দুর্লভ ছবি।গণগন্থাগারে পাঠক প্রতিদিন গড়ে ১০০-১২০ জন, গ্রন্থাগারের ল্যান্ডিং সিস্টেম চালু আছে সেখানে সদস্য সংখ্যা রয়েছে রেজিস্টার অনুযায়ী ৫৩৪ জন।

গণগ্রন্থাগারে বই পড়ার পাশাপাশি রংপুরে নিবন্ধিত বেসরকারী পাঠাগার সংখ্যা রয়েছে ৬২টি।৫ ফেব্রæয়ারী জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস ছাড়াও ৭টি জাতীয় দিবসে গণগ্রন্থাগার আয়োজিত বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করা হয়। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে রচনা, চিত্রাংকন, গল্প, হাতের সুন্দর লেখা, বই পাঠ প্রতিযোগীতা করে অনুষ্ঠান করে অতিথিদের মাধ্যমে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।গণ গ্রন্থাগারে রয়েছে ইন্টার্নেট ব্যবস্থা, ২টি ইনফরমেশন পিওর যেখানে সব রকম তথ্য পাওয়া যাবে। পাশাপাশি ১৬টি সিসি ক্যামেরা দ্বারা রয়েছে নিরাপত্তা বেষ্টনী।

সরকার সারা বাংলাদেশে ৭১টি সরকারী গণগ্রন্থাগার স্থাপন করেছেন যেখানে রয়েছে মনের খোরাক। এর মধ্যে রংপুর বিভাগীয় গণগন্থাগার উন্নয়নের ছোঁয়ায় ভরে গেছে ই-বুক ছাড়া মানুষকে বরাবরই বইএর উপর নির্ভরশীল হতে সব না হলেও কিছুটা বইয়ের যোগান দিয়ে আসছে গণগ্রন্থাগার গুলোন পাশাপাশি বেসরকারি পাঠাগার গুলোন।উল্যেখযোগ্য এখানে বই ধার নেয়া ভুলের মাসুল জরিমানা ছাড়া সকল সেবা বিনামূল্যে। বই ধার নেয়ার ক্ষেত্রে বিনামূল্যে ফরম নিয়ে ফেরতযোগ্য সাধারন সদস্য ১০০০, ছাত্র-ছাত্রী ৫০০, শিশুদের ২০০ ও নবায়ন ফি ৫০ (বাৎসরিক) টাকা জমা সাপেক্ষে বই ধার নিতে হবে। সময়মত বই ফেরত না দিলে জরিমানা গুনতে হবে। তাছাড়া বাকি সকল সেবা বিনামূল্যে প্রদান করে আসছে গণগ্রন্থাগার।

জানতে চাই আবু তালেব (৭০) বলেন, আমি গন্থাগারের শুরু লগ্ন হতে আজ অবধি রয়েছি। আমার সময় কাটানো মানে গ্রন্থাগার। গ্রন্থাগারের শুরুতে রাধাবল্লভে অফিস ছিলো সেখানেও আমি ছিলাম। এখানে বই, পেপারের সাথে সময় কাটাতে কাটাতে কখন সময় চলে যায় বলতে পাই। সচেতনতা মূলক ও স্বাস্থ্যের বই বাড়ালে আমাদের উপকার হতো। চাকরি হতে অবসর নেয়ার পর হতে গ্রন্থাগার হয়েছে আমার সব। এখানে রোকেয়া কর্ণার হলে ভালো হতো।

আমাদের জন্য সিনিয়র সিটিজেন কর্ণার আলাদা করে হলে ভালো হতো, জুনিয়রদের সাথে আমাদের মেলে না তাই অনুরোধ করছি আমাদের আলাদা ব্যবস্থা নেয়ার জন্য। ারিফুল ,শাফিউল সহ কয়েকজন বলেন, এখানে আসলে সারা বিশ^কে হাতের কাছে মনে হয়। আমরা এখানে প্রতিনিয়ত আসি সময়ও কাটে মনের খোরাকও মেটে। এখানে কয়েক আইটেমের পেপার আছে পেপারের সংখ্যা বাড়ালে ভালো হতো। ১০ম শ্রেণীর অমতী জানায়, আমাকে এখানে আসতে খুব ভালো লাগে তাই বই পড়তে চলে আসি, আমি সাধারনতো রহস্যময়ী গল্প পড়তে খুব ভালোবাসী। এখানে চলে আসি বই পড়ার জন্য। তবে এখানে বই কম তাই রহস্যের বই বাড়ালে ভালো হতো, এসে পড়তে পারতাম।

সহকারি পরিচালক আবেদ হোসেন বলেন, জেলা পর্যায় হতে এখন বিভাগী হয়েছে। আমাদের এখানে সিনিয়র সিটিজেন কর্ণার থাকলে ভালো হতো আমরা আলাদা করতে পারিনি তবে করা হবে। আমাদের বই ক্রয় কিম্বা সংগ্রহ একটি সিলেকশন কমিটি আছে সেখান হতে সিলেকশন করে পাঠানো হয়। যেহেতু এটা গণগ্রন্থাগার সেহেতু সকলে বেশী কিছু না পেলেও কিছু করে চাহিদা পূরণ হয়, সকলের সকল আশা পূরণ করা সম্ভব না। প্রত্যেকটা সাবজেক্ট এর বই এখানে রয়েছে। আমাদের পাঠক আমজনতা সকলেই কিছুনা কিছু তথ্য পাবে। আমরা এগিয়েছি সকলের সহযোগীতায় সামনে আরো এগিয়ে নিয়ে যাব।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerkagoj.com.bd/
Ajker Bangladesh Online Newspaper, We serve complete truth to our readers, Our hands are not obstructed, we can say & open our eyes. County news, Breaking news, National news, bangladeshi news, International news & reporting. 24 hours update.
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments