শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
Homeসারাবাংলাঅপহৃত মেয়েকে উদ্ধার করতে এসে ৩৩ দিন যাবৎ জেল হাজতে মা !...

অপহৃত মেয়েকে উদ্ধার করতে এসে ৩৩ দিন যাবৎ জেল হাজতে মা ! প্রতারক চক্র গ্রেফতার

জয়নাল আবেদীন: অপহৃত নিজ মেয়েকে উদ্ধার করতে এসে প্রতারক চক্রের ষড়যন্ত্রের ফাঁদে পড়ে কিশোরীর মা রংপুর জেল হাজতে । অতপর ৩৩ দিন কারাগারে অবস্থানকালে বৃহস্পতিবার বিকেলে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের আন্তরিক প্রচেষ্টায় ওই প্রতারক চক্রকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে ।

ভুক্তভোগী পরিবার এবং পুলিশ জানায় গত ২৫ ফেব্রুয়ারি নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার বড়ভিটা এলাকার জয়নাল আবেদীনের ছেলে আরিফুল ইসলাম ্এলাকার নৈশপ্র্রহরীর মেয়ে নবম শ্রেণির ছাত্রিকে অপহরণ করে । এরপর কিশোরগঞ্জ থানায় অভিযোগ করতে গেলে পুলিশ তা গ্র্রহণ করেনি। পরে ৪ মার্চ নীলফামারীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ মামলা দায়ের করেন ওই কিশোরীর মা। এদিকে মামলা চলাকালীন প্রতিপক্ষের লোকজন মামলা উঠিয়ে নিতে নানাভাবে আপোসের চেষ্টা করে। কিন্তু ওই পরিবার থেকে আপস করতে রাজি না হওয়ায় প্রতিপক্ষরা নানা ছক কষতে থাকে । এই কৌশলের এক পর্যায়ে মেয়ের মা কে জানানো হয় মেয়েকে রংপুরে পাওয়া গেছে । মেয়েকে উদ্ধারের জন্য অপহৃতা মেয়েকে রংপুরে পাওয়া গেছে এমন সংবাদ পেয়ে সহজ-সরল মেয়ের মা কে গ্রাম থেকে রংপুর শহরে নিয়ে আসেন লাভলু মিয়া। পরে কৌশলে একটি শপিং ব্যাগ সেলিনার হাতে ধরিয়ে দিয়ে সটকে পড়েন। এর কিছুক্ষণ পর কোতোয়ালি থানা-পুলিশ তাকে আটক করে ওই শপিং ব্যাগ থেকে ২৫ গ্রাম গাঁজা ও ১০ হাজার জাল টাকার নোট উদ্ধার করে। এরপর পুলিশ অপহৃতার মাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়ে দেয় ।

এ বিষয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অপরাধ বিভাগের উপ পুলিশ কমিশনার আবু মারুফ হোসেন বলেন, ২৮ মার্চ একজন নারীকে ২৫ গ্রাম গাঁজা ও ১০ হাজার টাকার জাল নোটসহ গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়। পরে জানতে পারি ওই নারীকে ফাঁসানো হয়েছে, এর নেপথ্যে অন্য কাহিনি আছে। এরপর আমরা সেটি নিয়ে ইনভেস্টিগেশন শুরু করি। তদন্ত করতে গিয়ে আমরা তার সত্যতা পেয়েছি। তিনি আরও বলেন, পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ওই নারীকে ফাঁসানো হয়েছে। আমরা এই পরিকল্পনার পুরোটাই শনাক্ত করেছি। যারা যারা সম্পৃক্ত আছে তাদেরকেও শনাক্ত করছি। এর মধ্যে মূল মাস্টার মাইন্ড দেলোয়ার মাস্টার ও ছবির হোসেন।

এ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছি, জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। বিজ্ঞ আদালতে হাজির করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেওয়ার চেষ্টা করব। পরবর্তীতে রিমান্ডে নিয়ে এর সঙ্গে কারা জড়িত, তাদেরও আইনের আওতায় আনব। বৃহস্পতিবার বিকেলে গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার বড়ভিটা এলাকার বাসিন্দা স্কুলশিক্ষক দেলোয়ার হোসেন ও ছবির হোসেন। গ্রেপ্তারের সময় তাদের কাছ থেকে জাল টাকার বাক্স, দুটি মোবাইল ফোন ও সিমকার্ড জব্দ করা হয়। এদিকে নৈশ প্রহরী অপহৃতার পিতা বলেছেন আমার স্ত্রীর মুক্তি ও মেয়েকে উদ্ধার চাই। যারা আমার মেয়েকে অপহরণ করেছে, আমার স্ত্রীকে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছে, আমি তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি চাই।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments