গোপালগঞ্জের সেই ভিসিকে প্রত্যাহারে ইউজিসির সুপারিশ

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ভিসি অধ্যাপক খোন্দকার নাসির উদ্দিনকে ‘প্রত্যাহার’ – এর সুপারিশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

অনিয়ম-দুর্নীতি ও নৈতিক স্খলনের দায়ে কমিশনের তদন্ত কমিটি এই সুপারিশ করে। ইউজিসির ৫ সদস্যের কমিটির প্রতিবেদন রোববার দুপুরে সংস্থার চেয়ারম্যানের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে সেটি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।
জানা গেছে, অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ ওঠা গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিনকে প্রত্যাহার করার সুপারিশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) তদন্ত কমিটি। একই সঙ্গে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ারও সুপারিশ করেছে এই কমিটি।

ইউজিসির সদস্য (পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়) দিল আফরোজা বেগম তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। তবে তিনি প্রতিবেদনের বিষয়বস্তু সম্পর্কে বলতে রাজি হননি।

তবে তদন্ত কমিটি সূত্রে জানতে পেরেছে, প্রতিবেদনে উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিনকে প্রত্যাহারের সুপারিশ করা হয়েছে। গত ১১ দিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন। তার প্রেক্ষিতেই ২৩ সেপ্টেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয় ইউজিসিকে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের সামগ্রিক তথ্যাদি জানাতে অনুরোধ করে। এর পরদিন ২৪ সেপ্টেম্বর ইউজিসির সদস্য মুহাম্মদ আলমগীরকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। ২৫ সেপ্টেম্বর কমিটি ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে সরেজমিনে যায়। সেখানে দুই দিন সরেজমিনে কাজ করে তদন্ত কমিটি। এরপর আজ রোববার এই প্রতিবেদন জমা দেয় কমিটি।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- ইউজিসির সদস্য দিল আফরোজা বেগম, ইউজিসির সদস্য সাজ্জাদ হুসেন, ইউজিসির পরিচালক কামাল হোসেন ও মৌলি আজাদ (সদস্যসচিব)।