ছাত্রলীগ নেতা অমিত সাহা

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদকে হত্যার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপ-সম্পাদক ও প্রকৌশল বিভাগের ছাত্র অমিত সাহাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার সকালের দিকে রাজধানীর সবুজবাগ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার অমিত সাহা বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ১৬তম ব্যাচের ছাত্র। ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার মো. মাসুদুর রহমান আজকের বাংলাদেশকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বুয়েটের শেরে বাংলা হলের যে ২০১১ নম্বর কক্ষে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়; সেই কক্ষটি অমিত সাহার। তার বিরুদ্ধে আবরারকে হত্যার অভিযোগ থাকলেও মামলায় নাম ছিল না। এ নিয়ে শুরু থেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনা চলছিল।

জানা গেছে, ঘটনার সময় অমিত সাহার নেতৃত্বে ছাত্রলীগের কর্মীরা আবরারকে বেদম মারধর করেন। পরে তিনিসহ অন্যরা বেরিয়ে যান।

ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসের জেরে আবরারকে গত রোববার রাতে ডেকে নিয়ে যান বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এরপর তাকে শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে কয়েক ঘণ্টা ধরে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। ওইদিন রাত ৩টার দিকে শেরে বাংলা হলের দোতলায় ওঠার সিঁড়ির করিডোর থেকে আবরারের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পরদিন সোমবার রাতে আবরারের বাবা বরকতুল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করলে ওই রাতেই হত্যায় সরাসরি জড়িত থাকার অভিযোগে ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে আরও চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। অমিতকে নিয়ে আবরার হত্যা মামলায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।