বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সাথে গতকাল মঙ্গলবার ব্যবসায়ীদের দফায় দফায় সংঘর্ষের পর সঙ্কট নিরসনের উদ্যোগ নেন শিক্ষকরা। কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এ টি এম মঈনুল হোসেনসহ শিক্ষকরা ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলতে গেলে হামলার শিকার হন। এতে চার শিক্ষক আহত হন। আজ বুধবার এ হামলার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান শিক্ষকরা।

গতকাল সকাল থেকে সংঘর্ষ শুরু হলে দুপুরে শিক্ষকরা ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলার জন্য কলেজ থেকে বের হন। কিন্তু কিছু দুর যেতেই মার্কেটের ছাদ এবং আশপাশ থেকে শিক্ষকদের লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুঁড়ে মারা হয়। শিক্ষকরা দ্রুত ফিরে আসেন। এসময় শিক্ষক পরিষদ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস শিকদারসহ চার শিক্ষক আহত হন।

পরে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এ টি এম মঈনুল হোসেন বলেন, আমরা চেষ্টা করছি কীভাবে সমস্যাটা মেটানো যায়। তবে মার্কেটে ভিড়ের জন্য সামনের দিকে যেতে পারিনি। আমরা এখন পুলিশ প্রসাশনের সাথে কথা বলব। প্রসাশনিক যে তৎপরতা আছে, সেটা চেষ্টা করব। আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে। শিক্ষার্থীদের কথা শোনানোর চেষ্টা করছি আমরা। এ ঘটনায় কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার (১৮ এপ্রিল) রাতে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সাথে নিউমার্কেট ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষ বাধে। রাত ১২টা থেকে শুরু হওয়া সংঘর্ষ তিন ঘণ্টা ধরে চলে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে একাধিক টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পুলিশ।

এর পর সকালে নীলক্ষেত মোড় থেকে সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড় পর্যন্ত রাস্তায় ব্যারিকেড দেয় শিক্ষার্থীরা। শুরু হয় ব্যবসায়ীদের সাথে দ্বিতীয় দফা সংঘর্ষ। সকাল সাড়ে ১০টার পর থেকে নীলক্ষেত মোড় থেকে সায়েন্সল্যাব পর্যন্ত এলাকায় থেমে থেমে সংঘর্ষ চলে। এতে শতাধিক শিক্ষার্থী এবং কয়েকজন সাংবাদিক আহত হন।

Previous articleরিমনের ছোঁড়া গুলিতেই মারা যায় তাসপিয়া: র‌্যাব
Next articleতিন দিন আগে ক্রয় করা অস্ত্রে বাবার কোলে শিশুকে গুলি করে হত্যা: র‌্যাব
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।