রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশন উৎকন্ঠিত নয়: রংপুরে সিইসি

জয়নাল আবেদীন: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, গণতন্ত্র বার বার বাধাগ্রস্ত হওয়ার কারণে এদেশের নির্বাচন ব্যবস্থার প্রতি জনগণের পূর্ণ আস্থা আসেনি। কোনও কেন্দ্রের অভিযোগ এলে সেসব কেন্দ্র বন্ধ করে দেয়া হবে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা বলেছেন রংপুর সদর আসন উপনির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশন উৎকন্ঠিত নয় । তবে কোন কেন্দ্র কোন অপ্রীতিকর ঘটনার সূত্রপাত ঘটলে সেই কেন্দ্র তাৎক্ষনিক বন্ধ করে দেয়া হবে । নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচন করে দিতে চায় । কমিশন কোন দল মত চেনে না যিনি নির্বাচিত হবেন তার নামই ঘোষনা করা হবে । সোমবার দুপুরে রংপুর জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি । প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন রংপুরে অতীতে ভোট হয়েছে ইভিএম পদ্ধতিতে এবারও ইভিএম মাধ্যমে ভোটারগণ তাদেও মুল্যবান ভোট প্রদান করবেন । কমিশন চায় আস্তে আস্তে আগামিতে দেশে সকল নির্বাচন ইভিএম পদ্ধতিতে অনুষ্টিত হবে । রংপুরে এই নির্বাচন নিয়ে সাধারন ভোটারদের মাঝে তেমন একটা সারা নেই এছাড়া দেশে অতীতে ৪৫ থেকে ৬০ভাগের বেশি ভোট পরেনি , রংপুরে প্রায় সাড়ে ৪ লাখ ভোটার কত পার্সেন্ট ভোট পরতে পারে বলে আপনি আশাবাদি এই প্রশ্নের উত্তরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন নির্বাচন কমিশন নির্বাচন সুষ্ঠু এবং অবাদ নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন করবে নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করবে । কিন্তু ভোটার উপস্থিতি এটাতো তাদেও বিষয় ভোটারদের সতসফ’র্ত অংশ গ্রহনের মধ্যেই নাগরিক অধিকার আদায় হবে । তাছাড়া সাংবাদিক ভাইরা ভোটারদের বোঝান প্রার্থীরা ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে আসতে অনুরোধ জানাক । এক প্রশ্নে উত্তওে তিনি বলেন বিএনপি প্রার্থীর পক্ষ থেকে কোন সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পাইনি পেলে অবশ্যই তার ব্যবস্থা নেব । তিনি অতীতে নির্বাচনের ইতিহাস আছে উল্লেখ করে বলেন । রাত ১০টায় একজনকে ঘোষনা দেয়া হলেও আবার ২ঘন্টা পর আরেক জনের নাম ঘোষনা করা হয়েছে । আমারা সেই নির্বাচন চাইনা । সিইসি আরো বলেন রোহিঙ্গারা জালিয়াতি করে বাংলাদেশের ভোটার হয়েছেন। এই কাজের সাথে নির্বাচন কমিশনের কিছু অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারি জড়িত তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এর আগে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে নির্বাচন সংক্রান্ত আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্টিত হয় । জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন নির্বাচন কমিশন সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর সহ পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাবসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।