• এ পর্যন্ত সারা দেশের ৩০০ আসনের মধ্যে ২৩২টি আসনের জন্য আওয়ামী লীগ তার প্রার্থীর একটি খসড়া তালিকা চূড়ান্ত করেছে।
  • ১৩ জন নেতার নাম পাওয়া গেছে যারা মনোনয়ন দৌড়ে থাকলেও চূড়ান্তভাবে দলের টিকেট পাননি।

আজকের কাগজ: এবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতা ও ডাকসাইট সাংসদ দলের নির্বাচনি টিকিট নিশ্চিত করতে পারেননি। এরমধ্যে অন্যতম ঢাকার জাহাঙ্গীর কবির নানক। তার আসনে নতুন মুখ ঢাকা উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাদেক খান। আজ রোববার সকালে আওয়ামী লীগের বঙ্গবন্ধু এভিনিউ কার্যালয়ে এসব মনোনয়নের টিকিট দিচ্ছেন।

এই পর্যন্ত এমন ১৩ জন নেতার নাম পাওয়া গেছে যারা মনোনয়ন দৌড়ে থাকলেও চূড়ান্তভাবে দলের টিকেট পাননি।তবে এর বাইরেও আরও বেশ কয়েকজনের নাম থাকার কথা জানা গেলেও তাদের নাম প্রকাশ করা হয়নি। তালিকা থেকে বাদ পড়া ১৩ জনই দশম জাতীয় সংসদের এমপি। এর মধ্যে আবার দুজন দলটির সাংগঠনিক সম্পাদকের পদে রয়েছেন।

এ পর্যন্ত সারা দেশের ৩০০ আসনের মধ্যে ২৩২টি আসনের জন্য আওয়ামী লীগ তার প্রার্থীর একটি খসড়া তালিকা চূড়ান্ত করেছে। দলটির সাংগঠনিক সম্পাদকদের মধ্যে শরীয়তপুর-১ আসন থেকে বিএম মোজাম্মেল হক ও মাদারিপুর-৩ আসনের এএফএম বাহাউদ্দিন নাসিম এই তালিকায় নেই।

তাদের পরিবর্তে আসন দুটি থেকে যথাক্রমে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন অপু ও দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ মনোনয়ন পেতে চলেছেন।

আর যে ১১ জন এমপি এবারের মনোনয়নের তালিকায় নেই তারা হলেন, মাগুরা-১ আসনের এটিএম আব্দুল ওয়াহাব, রাজশাহী-৫ আসনের আব্দুল ওয়াদুদ দারা, যশোর-২ আসনের মনিরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ-১১ আসনের মোহাম্মদ আমানুল্লাহ, টাঙ্গাইল-২ আসনের খন্দকার আসাউজ্জামান, টাঙ্গাইল-৩ আসনের আমানুর রহমান খান রানা, কিশোরগঞ্জ-২ আসনের সোহরাব উদ্দিন, মুন্সিগঞ্জ-১ আসনের সুকুমার রঞ্জন ঘোষ, নেত্রকোনা-৩ আসনের ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টু, শরীয়তপুর-২ আসনের কর্নেল (অব.) শাখাওয়াত আলী ও কক্সবাজার-৪ আসনের আব্দুর রহমান বদি।

যারা দলীয় মনোনয়নের চিঠি পেয়েছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন- শেখ হাসিনা (গোপালগঞ্জ-৩ ও রংপুর-৬), ওবায়দুল কাদের (নোয়াখালী-৫), মুজিবুল হক (কুমিল্লা-১১), ডা. দীপু মনি (চাঁদপুর-৩), শ ম রেজাউল করিম (পিরোজপুর-১), সাইফুজ্জামান শিখর (মাগুরা-১), শেখ ফজলে নূর তাপস (ঢাকা-১০), আসাদুজ্জামান খাঁন (ঢাকা-১২), সাদেক খান (ঢাকা-১৩), আসলামুল হক (ঢাকা-১৪), নিজামউদ্দিন হাজারী (ফেনী-২), খালিদ মাহমুদ চৌধুরী (দিনাজপুর-২), সিমিন হোসেন রিমি (গাজীপুর-৪), ফাহমি গোলন্দাজ বাবেল (ময়মনসিংহ-১০), শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল (খুলনা-২), মাশরাফি বিন মুর্তজা (নড়াইল-২), মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল (চট্টগ্রাম-৯), ড. আব্দুর রাজ্জাক (টাঙ্গাইল-১), এনামুল হক (রাজশাহী-৪), গোলাম দস্তগীর গাজী (নারায়নগঞ্জ ১), শাজাহান খান (মাদারীপুর- ২), আব্দুস সোবাহান গোলাপ (মাদারীপুর-৩), কাজী জাফরুল্লাহ (ফরিদপুর-৪), শেখ ফজলুল করিম সেলিম (গোপালগঞ্জ ২), আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল (ঢাকা-১২) মাহাবুব উল আলম হানিফ (কুষ্টিয়া-৩) আনিসুল হক (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪), এনামুল হক (রাজশাহী-৪), আব্দুর রাজ্জাক (টাঙ্গাইল-১), নসরুল হামিদ (ঢাকা-৩), অসিম কুমার উকিল (নেত্রকোণা ৩), মোহাম্মদ নাসিম (সিরাজগঞ্জ-১), নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন (ভোলা-৩), আ ক ম বাহাউদ্দিন (কুমিল্লা-৬), জুনাইদ আহমেদ পলক (নাটোর-৩) কাজী নাবিল আহমেদ (যশোর ৩)।

আরও চিঠি পেয়েছেন- এনামুল হক শামিম (শরিয়তপুর-২ ), ইকবাল হোসেন সবুজ (গাজীপুর-৩), সালমান এফ রহমান (ঢাকা-১), কামাল হোসেন মজুমদার (ঢাকা-১৫), শেখ হেলালউদ্দিন (বাগেরহাট-১), মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী (সিলেট-৩), শামসুল হক চৌধুরী (চট্টগ্রাম-১২), অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম (ঢাকা-২), নাইমুর রহমান দুর্জয় (মানিকগঞ্জ-১), সাবের হোসেন চৌধুরী (ঢাকা-৯), এ কে এম রহমত উল্লাহ (ঢাকা-১১), মোজাফফর হোসেন (জামালপুর-৫), নাজমুল হাসান পাপন (কিশোরগঞ্জ-৬), মতিয়া চৌধুরী (শেরপুর-২)।

ঢাকা ১- সালমান এফ রহমান, ঢাকা ২- কামরুল ইসলাম, ঢাকা নসরুল হামিদ বিপু (ঢাকা-৩), সাবের হোসেন চৌধুরী (ঢাকা-৯), ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস (ঢাকা-১০), একেএম রহমতুল্লাহ (ঢাকা-১১), আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল (ঢাকা-১২), আসলামুল হক (ঢাকা- ১৪) কামাল আহমেদ মজুমদার (ঢাকা-১৫), ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লা (ঢাকা-১৬)।

প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব-২ সাইফুজ্জামান শিখর মাগুরা-১ আসন থেকে ও সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদ কিশোরগঞ্জ-২ আসন থেকে, আওয়ামী লীগের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল নেত্রকোনা-৩ আসন থেকে ও সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম শরীয়তপুর-২ আসন থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন।

তবে জোটের শরিদের জন্য আওয়ামী লীগ যেসব আসন ছেড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে সেখানে কোনো প্রার্থী ঠিক না করলেও ঢাকা-১ আসনের জন্য দলের সভাপতি শেখ হাসিনার উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানকে বেছে নিয়েছেন। জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সালমা ইসলাম বর্তমানে এই আসনের এমপি।

ঢাকার ২০টি আসনের মধ্যে দলটির বর্তমান ১৩ জন এমপি মনোনয়ন পেবেন। এসব আসনের মধ্যে জোটের শরিকদের ৩টি আসনের ব্যাপারে এখনও সিদ্ধান্ত নেয়নি আওয়ামী লীগ। এর মধ্যে ঢাকা-৪ ও ৬ আসনে জাতীয় পার্টি ও ঢাকা-৮ আসনে ওয়ার্কার্স পার্টির এমপি রয়েছেন। আর ঢাকা-১৭,১৮ ও ২০ আসনে কারা মনোনয়ন পেতে চলেছেন সেটি জানা সম্ভব হয়নি।

এর মধ্যে ঢাকা-১৭ আসনের এমপি বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের প্রধান আবুল কালাম আজাদ। এই দলটি ক্ষমতাসীন দলের জোটের মধ্যে নেই। এই আসন থেকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ প্রার্থী হতে চান। ঢাকা-১৮ ও ২০ আসনের বর্তমান এমপি যথাক্রমে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহারা খাতুন ও এমএ মালেক।