বাংলাদেশ প্রতিবেদক: জনগণ একদলীয় শাসন ব্যবস্থা চায় না। আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে হটিয়ে জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন-ডিইউজের বার্ষিক সাধারণ সভা- ২০২১ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

এসময় মির্জা ফখরুল বলেন, গণতন্ত্রের মুখোশ পরিয়ে সব অধিকার হরণ করেছে সরকার। শুধু অস্ত্রের জোরে ক্ষমতা দখল করে রেখেছে আওয়ামী লীগ। স্বাধীনতার যে আশা আকাঙ্খা ছিলো তা ধ্বংস করে দিয়েছে তারা।

তিনি আরও বলেন, দেশজুড়ে ত্রাস তৈরি করতে সফল হয়েছে আওয়ামী লীগ। অত্যন্ত সুকৌশলে, সুপরিকল্পিতভাবে দীর্ঘদিন ধরে তারা এ কাজটি করে আসছে। ফেসবুকে বা সোশ্যাল মিডিয়াতে যারা মতামত দেয় তাদের নিয়ন্ত্রণে ব্যক্তি সুরক্ষা আইন করতে যাচ্ছে সরকার। এরমধ্যে বাকশালের আলামত পাওয়া যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।

মহাসচিব জানান, এক-এগারোর যে পরিবর্তন এসেছিলো, সে পরিবর্তনের কথা ছিলো তখন যে রাজনীতিবিদরা ব্যর্থ হচ্ছেন, সুতরাং আমরা এটাকে ঠিক পথে নিয়ে যেতে চাই। মাইনাস টু ফর্মুলা নিয়ে এসেছিলো তারা। রাজনীতিবিদরা বাতিল, তারা যোগ্য প্রার্থীর খোঁজও করছিলো। দুর্ভাগ্য আমাদের, দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার অনড় ভূমিকার কারণে সে অবস্থা থেকে মুক্তি পেলেও সে চক্রান্ত থেকে মুক্তি পাইনি। ২০০৮ সালের নির্বাচন থেকে পরবর্তী সব নির্বাচন সেই একই লক্ষ্যে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। এখন সবচেয়ে দুর্ভাগ্য দেশ এখন রাজনীতিবিদরা পরিচালনা করেন না। একজন রাজনীতিবিদ শেখ হাসিনাকে তারা শিকড় হিসেবে দাঁড় করিয়ে রেখেছে। তাকে দিয়ে যত অরাজনৈতিক, গণবিরোধী, গণতন্ত্রবিরোধী সকল কাজ করিয়ে নিচ্ছে।

Previous articleবিয়ের আগেই পাত্রের মাকে নিয়ে পালিয়ে গেল পাত্রীর বাবা!
Next articleসমালোচনাকারীরা ভুলে যায় যে আমি জাতির পিতার মেয়ে: প্রধানমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।