আবুল কালাম আজাদ: টাঙ্গাইলের সন্তোষে মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর কবরে শ্রদ্ধা নিবেদনে যাওয়ার পথে গণঅধিকার পরিষদের আহ্বায়ক ড. রেজা কিবরিয়া ও সদস্য সচিব নুরুল হক নূরসহ দলটির নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা চালিয়েছেন ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। এ সময় গণঅধিকার পরিষদের ৪০ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন ড. রেজা কিবরিয়া। বুধবার (১৭ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা পুলিশের উপস্থিতি থাকার পরও আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। তবে তিনি তার ফেসবুকের আরেকটি পোস্টে লেখেন হামলায় দলটির ৪০ জন আহত হয়েছেন। এ বিষয়ে তিনি পুলিশের নিষ্ক্রিয়তার বিষয়টিও উল্লেখ করেন এবং থানায় গিয়ে মামলা করবেন বলে জানান।

সংগঠনটির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শাকিলুজ্জামান বলেন, মওলানা ভাসানীর মাজারের কাছাকাছি পৌঁছালে ছাত্রলীগের অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী দলীয় স্লোগান দিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালান। এতে আমাদের আহ্বায়ক ড. রেজা কিবরিয়া ও সদস্যসচিব নুরুল হক নুরসহ বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মী আহত হন।

স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে,বুধবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে রেজা কিবরিয়া ও নুরুল হকের নেতৃত্বে গণ অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতারা সন্তোষে পৌঁছান। এ সময় সেখানে টাঙ্গাইলের বিভিন্ন উপজেলা থেকে আগত সংগঠনের নেতা-কর্মীরা তাঁদের সঙ্গে যোগ দেন। মিছিলসহ নেতা-কর্মীরা শ্রদ্ধা জানাতে ভাসানীর মাজারের কাছাকাছি পৌঁছালে তারা হামলার শিকার হন। এ সময় মাথায় ইটের ঢিল লেগে রেজা কিবরিয়া আহত হন। পরে পুলিশ রেজা কিবরিয়াকে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যায়। নুরুল হকসহ কয়েকজন নেতা-কর্মীকে একটি পুলিশ ভ্যানে তুলে ভ্যানটির চারপাশ ঘিরে রাখে পুলিশ। ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে লাঠিসোঁটা নিয়ে তাঁদের ওপর হামলা করেন। চারপাশ তাঁরা ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ ভ্যানে করে নুরুল হকসহ ২৫ জন নেতা-কর্মী কাগমারী পুলিশ ফাঁড়িতে অবস্থান নেন। আহত রেজা কিবরিয়া প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় যান। অভিযোগের বিষয়ে ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক নিবিড় পাল জানান,শ্রদ্ধা জানাতে এসে তাঁরা ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা করেন। পরে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা তাঁদের হামলা প্রতিহত করেন।আলোচনায় আসার জন্য নুরুল হক পরিকল্পিতভাবে এই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছেন। এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সরওয়ার হোসেন জানান,গণ অধিকার পরিষদের নেতারা মাওলানা ভাসানীর মাজারে কাছাকাছি পৌঁছানোর পর পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে রেজা কিবরিয়া ও নুরুল হকসহ গণ অধিকার পরিষদের নেতা-কর্মীদের পুলিশি নিরাপত্তায় ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়।

Previous articleভ্যাকসিন উৎপাদনে আন্তর্জাতিক মানের ইনস্টিটিউট হবে: প্রধানমন্ত্রী
Next articleনির্বাচনে মুখোমুখি দুই সতীন, বিপাকে স্বামী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।