খেলার কাগজ: ঢাকা টেস্টে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে দ্বিতীয় দিন ব্যাট করছে টাইগাররা। প্রথম দিন অভিষিক্ত টাইগার ওপেনার সাদমান ইসলামের পর অর্ধ-শতক তুলে বিদায় নিয়েছেন টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও লিটন দাস। তবে নিজের ইনিংসকে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরিতে পরিণত করেছেন টাইগার শিবিরের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ।

২০৩ বলে ৬ চারে সেঞ্চুরি করেন এই টাইগার তারকা। অপরাজিত আছেন ১০৩ রানে। অপর প্রান্তে তাইজুল ইসলাম অপরাজিত আছেন ২০ রানে। বাংলাদেশের স্কোর ৪৫৭/৮।

এদিকে, আজকে শুরুতেই আগের দিনের ৫৫ রানের খেলতে নামা সাকিব বিদায় নেন ৮০ রানে। কেমার রোচের বলে শাই হোপের হাতে ক্যাচ দিয়ে বাইশ গজের ক্রিজ ছাড়েন টাইগার অধিনায়ক। তবে মাহমুদউল্লাহ পর দুর্দান্ত ফিফটি তুলে নিয়ে লাঞ্চ বিরতিতে যান লিটন দাস। কিন্তু বিরতির পর আর নিজের ইনিংসটা লম্বা করতে পারেননি বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান লিটন।

বিরতির পর ফিরেই উইন্ডিজ পেসার কার্লোস ব্র্যাথওয়েটের বলে বোল্ড হন লিটন। আউট হওয়ার আগে ৮ চার ও ১ ছক্কায় ১০০ স্ট্রাইক রেটে ক্যারিয়ারের চতুর্থ ফিফটি তুলে নিয়েছিলেন তিনি। মাহমুদউল্লাহ’র সঙ্গে তার ৯২ রানে জুটি বাংলাদেশের রান চারশ ছুঁই ছুঁই অবস্থানে যেতে রেখেছে অনন্য ভূমিকা।

এরপর ক্রিজে এসেই আগ্রাসী ব্যাটিং শুরু করেন মেহেদি হাসান মিরাজকে। কিন্তু উইন্ডিজ স্পিনার জোমেল ওয়ারিকানের বলে আউট হয়ে তিনি বিদায় নেন ১৮ রানে। ছোট এই ইনিংসটি ৪টি বাউন্ডারি দিয়ে সাজিয়েছেন এই স্পিনিং অলরাউন্ডার। এগিয়ে এসে ব্যাট চালিয়েছিলেন মিরাজ, কিন্তু বল তার ব্যাটের কানা ছুঁয়ে উইকেটরক্ষক ডওরিচের গ্ল্যাভসবন্দী হয়। যদিও শুরুতে আউট দেননি আম্পায়ার। পরে রিভিও নিলে দেখা যায় বল মিরাজের ব্যাট ছুঁয়ে গিয়েছিল।

এর আগে প্রথম দিন টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন সাকিব। এদিন পুরো ক্রিকেট বিশ্বের নজর কেড়েছেন অভিষিক্ত টাইগার ওপেনার সাদমান ইসলাম। ১৯৯ বলে ৭৬ রান করে বিদায় নেন এই তরুণ। তবে প্রথম ঘণ্টা শেষেই ফেরেন ওপেনার সৌম্য সরকার। ইনিংসের ১৬তম ওভারের তৃতীয় বলে ৪২ বল খেলে ১৯ রান করে রোস্টন চেজের বলে শাই হোপের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান সৌম্য। বিরতির আগে আউট হন মুমিনুল হকও। ৪৬ বলে ২৯ রান করে কেমার রোচের বলে রোস্টন চেজের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান।

এ সময় ব্যাট হাতে দলকে এদিয়ে নিতে থাকেন সাদমান ও মিঠুন। তবে দলীয় ১৫১ রানে মিঠুনকে (২৯) বোল্ড করেন দেবেন্দ্র বিশু। এরপর স্কোর বোর্ডে মাত্র ১০ রান যোগ করতে বিশুর আঘাতেই বিদায় নেন সাদমান। অভিষিক্ত এই তরুণ ১৯৯ বলে ৭৬ রানের রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেন।

এরপর দলীয় ১৯০ রানে বিদায় নেন মুশফিক। ব্যক্তিগত ১৪ রান করে লুইসের বলে বোল্ড হন এই টাইগার উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান।