কাগজ ডেস্ক: গেল শুক্রবার রাঁচির ঝাড়খণ্ড স্টেট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে লড়ে ভারত-অস্ট্রেলিয়া। সেই ম্যাচে আর্মি টুপি পরে মাঠে নামেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। সম্প্রতি কাশ্মীর হামলায় নিহত সেনাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এ অভিনব পন্থা অবলম্বন করেন তারা। পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী চৌধুরী ফাওয়াদ হোসেন মনে করেন, সেনা ক্যাপ পরে খেলে ক্রিকেটকে ‘কলুষিত’ করেছে ভারত।

এটি ছিল পাঁচ ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডে। এ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে গেছে টিম ইন্ডিয়া। তবে এখনো সিরিজে এগিয়ে আছে স্বাগতিকরা। ২-১ ব্যবধানে সিরিজ বিদ্যমান।

টসের সময় ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি জানান, সেনাদের স্মরণে এ উদ্যোগ। সেই সঙ্গে দেশের মানুষকে ন্যাশনাল ডিফেন্স ফান্ডে অনুদান দিতে অনুপ্রাণিত করাও আমাদের উদ্দেশ্য। নিহত সেনাদের সন্তানদের লেখাপড়ার জন্যই এ ফান্ড গঠন।

ম্যাচের আগে সোশ্যাল মিডিয়া টুইটারে ভিডিও আপলোড করে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই) জানায়, পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত সেনাদের স্মরণে আর্মি টুপি পরে খেলবেন কোহলিরা। দেশের মানুষকে জাতীয় প্রতিরোধ তহবিলে অনুদান দিতে অনুপ্রাণিত করাও অন্যতম লক্ষ্য। এতে নিহত সেনা পরিবারের সন্তানদের পড়াশোনার দায়িত্ব নেয়া যাবে।

তবে চিরবৈরি দুই দেশের যুদ্ধপরিস্থিতিতে আর্মি ক্যাপ পরে কোহলিদের মাঠে নামাটাকে ক্রিকেটকে ‘অপমান ও কলুষিত’ করা বলে মনে করছেন চৌধুরী ফাওয়াদ হোসেন। তার আশাবাদ, এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করবে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলও (আইসিসি) ভারতের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেবে।

টুইটারে কোহলিদের আর্মি ক্যাপ পরা একটি ছবি পোস্ট করে পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী লিখেছেন, এটা ক্রিকেটীয় আচরণ নয়। আমি আশা করছি, ভদ্রলোকের খেলাটিকে রাজনীতিকীকরণের জন্য সময়োপযোগী পদক্ষেপ নেবে আইসিসি। ভারতীয় দল এমন করা বন্ধ না করলে আমি বলব, পাকিস্তানেরও উচিত কালো ব্যান্ড পরে খেলতে নামা। কাশ্মীরে ভারতের অত্যাচারের কথা বিশ্ববাসীকে স্মরণ করিয়ে দেয়া, জানিয়ে দেয়া। এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ করতে পিসিবিকে আহ্বান জানাচ্ছি।