নির্যাতনের অভিযোগে এএসপির বিরুদ্ধে স্ত্রীর মামলা, স্বামীর জিডি

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: পুলিশের এক সহকারী পুলিশ সুপারের (এএসপি) বিরুদ্ধে ভ্রুণ হত্যা এবং যৌতুকের জন্য নির্যাতনের অভিযোগ এনে মামলা করেছেন তার স্ত্রী।

নাজমুস সাকিব নামের ওই পুলিশ কর্মকর্তা বর্তমানে র‌্যাবে কর্মরত। তার স্ত্রী ইশরাত রহমান বৃহস্পতিবার রাতে রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করেন বলে ওসি মনিরুল ইসলাম জানান।

গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, মামলায় নাজমুস সাকিব ছাড়াও তার বাবা সফিউল্লাহ তালুকদার ও মা খালেদা সুলতানাকে আসামি করা হয়েছে।

এজাহারে বলা হয়েছে, নাজমুস সাকিবের সঙ্গে ইশরাত রহমানের বিয়ে হয় ২০১৭ সালের মার্চে। বিয়ের পর থেকেই শ্বশুর-শাশুড়ি ইশরাতকে ‘যৌতুকের জন্য চাপ’ দিতে থাকেন।
টাকার জন্য ‘শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন’ করা হত অভিযোগ করে ইশরাত এজাহারে বলেছেন, নির্যাতনের ভয়ে তিনি তার বাবার কাছ থেকে প্রায়ই টাকা এনে দিতেন।

স্বামী নাজমুস সাকিব ‘তালাকের ভয় দেখিয়ে’ ২০১৯ সালের জুলাই মাসে ইশরাতকে ‘গর্ভপাতে বাধ্য করেন’ বলেও অভিযোগ করা হয়েছে মামলায়।

রমনার ওসি বলেন, গত ১ মে নাজমুস সাকিবও নিপীড়নের অভিযোগ এনে স্ত্রীর বিরুদ্ধে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছিলেন।

স্ত্রীর অভিযোগের বিষয়ে নাজমুস সাকিবের বক্তব্য সংগ্রহ করতে পারেনি সংবাদমাধ্যম।

তবে তার এক সহকর্মী সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, “ওদের সংসারে অশান্তি চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেছে। সাকিবের স্ত্রী শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে না থেকে আলাদা থাকতে চাইছিলেন। এ নিয়েও তাদের সমস্যা ছিল।”

ওই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, সাকিব ও তার মা এ পর্যন্ত তিনবার সাধারণ ডায়েরি করেছেন থানায়।