সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় কৃষকদের চাহিদার মুখে ইরি ধান বীজ বেশি দামে বিক্রি করা হচ্ছে এমন অভিযোগ মিলছে। বিভিন্ন কোম্পানীর হাইব্রিড জাতের ধান বীজ তাদের (কোম্পানী) বেধে দেওয়া দামের চেয়ে বিক্রেতারা বেশি দাম নিচ্ছে বলে জানা যায়। এক কেজি ওজনের প্যাকেট বীজ নির্ধারিত দামের চেয়ে কৃষকদের চাহিদা বুঝে
৫০ থেকে ১’শ টাকা বেশি নেওয়ার অভিযোগ উঠছে। বিভিন্ন কোম্পানীর হাইব্রিড জাতের এক কেজি ওজনের
প্যাকেট বীজ ৩’শ ৪৫ টাকা থেকে সাড়ে ৪’শ টাকায় কেনাবেচা হচ্ছে বলে খোজ নিয়ে জানা যায়। কৃষকদের কাছে
সবচেয়ে বেশি চাহিদা হলো বেসরকারি একটি কোম্পানীর ১২০৩ জাতের ধান বীজ। এ কোম্পানীর আরও একটি
১২০৫ জাতের ধান বীজ বাজারজাত করন হয়েছে। এছাড়া সরকারি বিএডিসির ব্রি-২৯ জাতের ধান বীজের চাহিদা
বেশ রয়েছে। জানা গেছে উল্লাপাড়ায় ৪৪ জন বীজ ডিলার রয়েছে। এরা বিএডিসির ব্রি-২৯, ব্রি-২৮, ব্রি-৫৮
জাতের ধান বীজ বিক্রি করছে। খোজ নিয়ে জানা গেছে এসব ডিলারেরা নির্ধারিত দামেই কৃষকদের কাছে ধান বীজ
বিক্রি করছে।
এদিকে উল্লাপাড়ায় বিভিন্ন বেসরকারি কোম্পানীর হাইব্রিড জাতের ধান বীজ স্থানীয় বীজ ব্যবসায়ীরা মজুদ
রেখে বিক্রি করছে। উপজেলা সদর ছাড়াও মফস্বল এলাকার হাটবাজারেও এসব ধান বীজ বিক্রি করা হচ্ছে।
বেসরকারি একটি কোম্পানীর বীজ ডিলার বেশি দাম নেওয়ার বিষয়ে অস্কীকার করে বলেন হয়তো বা খুচরা
বিক্রেতারা সুযোগ বুঝে বেমি দাম নিতে পারেন।
এখন ইরি ধান বীজ তলা তৈরির পুরো মৌসুম চলছে। কৃষকেরা তাদের সংগ্রহে রাখা বীজ ছাড়াও বিভিন্ন এলাকার
থেকে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বীজ কিনে বীজতলা করছে।
উপজেলা সিনিয়র কৃষি কর্মকর্তা মোঃ খিজির হোসেন প্রামানিক জানান, ধান বীজের দাম বেশি নেওয়ার
অভিযোগ পেলেও এর রোধে অবশ্যই পদক্ষেপ নেওয়া হবে।