কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বদরখালীতে চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সোমবার রাতে শহীদুল্লাহ (৫০) নামের এক ভণ্ডবৈদ্য ও তাকে সহায়তাকারী এক নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শহীদুল্লাহ বদরখালী ইউনিয়নের সাত নম্বর ওয়ার্ডের ভেরুয়াখালী পাড়ার নজির আহমদের ছেলে এবং তাকে সহায়তাকারী শাহজাহান বেগম পূর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়নরে সেকান্দর পাড়ার নুরুল আবছারের (মানসিক রোগী) স্ত্রী বলে জানা গেছে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পূর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়নের ঘাইট্যারচর (শমসু মিয়ার) বাজার সংলগ্ন এলাকার নুরুল আবছার নামে এক ব্যক্তি মানসিক রোগে আক্রান্ত হয়। তাকে ঝাড়-ফুঁক’র জন্য নিয়ে যাওয়া হয় বদরখালীস্থ গোয়াখালী পাড়ার শহীদুল্লাহ নামে ভণ্ডবৈদ্যের কাছে
ভণ্ডবৈদ্য মানসিক রোগে আক্রান্ত নুরুল আবছারের স্ত্রী শাহজাহান বেগমকে বলেন, তার স্বামীকে সুস্থ করতে হলে ৮-৯ বছরের একটি নিষ্পাপ মেয়ে শিশুর প্রয়োজন। বৈদ্যের কথা অনুযায়ী মানসিক রোগীর স্ত্রী তার এলাকার পূর্ব বড় ভেওলা জিএনএ মিশনারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে নিয়ে যায় বৈদ্যের কাছে। পরে ওই বৈদ্য রাতে ঝাড়-ফুঁক করবে বলে মানসিক রোগীর স্ত্রীকে আশ্বস্থ করে রবিবার রাতে ওই শিশুকে ধর্ষণ করে। ঘটনার পরেই মেয়েটি তার মাকে এ বিষয়ে জানালে তিনি তৎক্ষণাৎ পুলিশের শরণাপন্ন হন।

থানার ওসি ঘটনা শুনার পরপরই থানার একটি পুলিশ দল ঘটনাস্থলে পাঠান। পরে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ভণ্ডবৈদ্য শহিদুল্লাহকে বদরখালী থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এছাড়াও মানসিক রোগী নুরুল আবছারের স্ত্রী শাহজাহান বেগমকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রীকে চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিসের সেন্টারে পাঠানো হয়।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।