কাগজ প্রতিনিধি: কয়েক ঘণ্টা পর শুরু হচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। কিন্তু নির্বাচনী মাঠে মৌলভীবাজারে বিএনপি নেতাকর্মীরা এখনো ফিরতে পারেননি বলে অভিযোগ উঠেছে। প্রতীক বরাদ্দের পর বিচ্ছিন্ন কিছু এলাকায় গণসংযোগ করলেও গ্রেপ্তার আতঙ্কে রাতের বেলায় হাওড়ে-জঙ্গলে তারা রাত্রিযাপন করছেন বলে জানা গেছে।

বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তীব্র শীতকে উপেক্ষা করে ফসলি মাঠ কিংবা গাছ তলায় সংগঠিত থেকে রাত কাটাচ্ছেন তারা।

জেলা বিএনপি একাধিক নেতাকর্মীর অভিযোগ, প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই তারা মাঠে নামতে পারেননি, উল্টা বিভিন্ন মামলায় তারা পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। তাদের নামে বিভিন্ন মিথ্যা এবং গায়েবি মামলায় হয়রানি করা হচ্ছে। শত শত নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। তবে তাদের লক্ষ্য যেভাবেই হোক নির্বাচনের দিন পর্যন্ত গ্রেপ্তার এড়িয়ে তারা ভোটের দিন কেন্দ্রে উপস্থিত থাকবেন।

মৌলভীবাজার যুবদলের সভাপতি জাকির হোসেন উজ্জল বলেন, ‘আমি নিজেও গত রাতে প্রায় ৩০ জন কর্মীকে নিয়ে হাওরে রাত কাটিয়েছি। সারা জেলায় কয়েক হাজার নেতাকর্মীর পাশাপাশি সাধারণ মানুষকেও পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে। তবে এই অবস্থা ভোটের দিন থেকে থাকবে না। ভোটের দিনে আমরা মাঠে থাকার জন্যই গ্রেপ্তার এড়াতে পালিয়ে বেড়াচ্ছি।’

এ বিষয়ে মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বলেন, ‘মিথ্যা ও গায়েবি মামলার কারণে নেতাকর্মীরা পালিয়ে বেড়াচ্ছে। এমন নির্বাচন আর মামলা আমি আমার জীবনে দেখিনি। একটি স্বাধীন দেশে গণগ্রেপ্তার এড়াতে সাধারণ মানুষ এভাবে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে, যা দুঃখজনক।’

বিএনপি এই নেতা বলেন, ‘যত হামলা মামলাই হোক কৌশলগত কারণে আমাদের নেতাকর্মী আড়ালে আছে। ভোটের দিন সরব উপস্থিতি ঘটবে।’

এ বিষয়ে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার শাহ জালাল বলেন, ‘অযথা কাউকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। যাদের বিরুদ্ধে মামলা আছে, ওয়ারেন্ট আছে-তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’