কাগজ প্রতিনিধি: রাজধানীর মালিবাগে বাসচাপায় প্রাণ হারিয়েছেন দুই তরুণী। আজ দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বাসসহ চালককে আটক করেছে পুলিশ। দুই তরুণীর লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। তাঁরা একটি তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিক ছিলেন বলে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। নিহত দুজন হলেন মিম (১৬) ও পারভিন (২২)।

এ দুর্ঘটনার পর পথচারীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। খবর পেয়ে আশপাশের লোকেরা জড়ো হয়ে সড়কে ব্যাপক গাড়ি ভাঙচুর চালায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বিক্ষুব্ধসহকর্মীরা সড়কে বিক্ষোভ করতে থাকেন। তারা অন্তত অর্ধশতাধিক গাড়ি ভাঙচুর চালায়। বিকেলে পৌনে পাঁচটায় এ প্রতিবেদন লেখার সময়ও ভাঙচুর অব্যাহত রয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বিক্ষুব্ধ জনতা ব্যাপক বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। পুরো এলাকায় উত্তাল হয়ে ওঠে। ফলে ওই এলাকার স্বাভাবিক যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানায়, বেলা দেড়টার দিকে মালিবাগের চৌধুরীপাড়ার রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন মিম ও পারভিন। এ সময় সুপ্রভাত পরিবহনের একটি বাস তাঁদের দুজনকে চাপা দেয়। ঘটনাস্থালেই মিম মারা যায়। পুলিশ সার্জেন্ট সুব্রত কুমার দে পারভিনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

সুব্রত কুমার দে বলেন, তিনি পারভিনকে আহত অবস্থায় দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসেন, কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। তরুণী দুজনের লাশ মর্গে রাখা হয়। তাৎক্ষণিকভাবে তাঁদের পরিচয় জানা যাচ্ছিল না। পরে তাঁদের সহকর্মীরা মর্গে এসে লাশ শনাক্ত করেন। সুব্রত কুমার দে জানান, এ ঘটনায় সুপ্রভাত বাসের চালক ও বাসটি আটক করেছে হাতিরঝিল থানার পুলিশ।