সদরুল আইন: গাজীপুরের দেদীপ্যমান এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম ইকবাল হোসেন সবুজ।কৃষক পরিবার থেকে উঠে আসা ছাত্র রাজনীতির স্বর্ণালী পথ ধরে এই এলাকার রাজনীতির কুটিল মঞ্চে যিনি জায়গা করে নিয়েছেন নিজের প্রখর বুদ্ধিমত্তা, সততা আর নির্মোহ ভালবাসা দিয়ে।

যিনি অনাবিল ভালবাসা বিলিয়ে পঙ্কিলতার পাদপিঠে সুরভি ঢেলে উত্তাল ভালবাসার জোয়ারে ভাসিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছেন তথাকথিত রাজনীতির সাজানো মঞ্চ।৩০ বছরের শৃঙ্খল ভেঙ্গে যিনি নতুন সূর্যের আবির্ভাব ঘটিয়ে মানবিক জীবনের স্বপ্নের শেকড় প্রথিত করতে সক্ষম হয়েছেন মানব মনে।

একাদশ সংসদ নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে ৩০ শে ডিসেম্বর। সারাদেশে অভূতপূর্ব ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারি সংগঠন আ’লীগ ৪র্থ বারের মত টানা তৃতীয় বারের মত শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে ৫/৬ তাখিখের মধ্যেই। শপথ ৩ রা জানুয়ারি।

দেশের সংসদীয় রাজনীতির ইতিহাসে রেকর্ড সংখ্যক ভোট পেয়ে গাজীপুর-৩ আসন থেকে জয় লাভ করেছেন ইকবাল হোসেন সবুজ।

ইকবাল হোসেন সবুজ মোট ১৬৯ টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে সবগুলো কেন্দ্রের ফলাফলে মোট ভোট পেয়েছেন ৩ লাখ ৪৫ হাজার ৮৬১ ভোট।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থি ইকবাল সিদ্দিকী ধানের শীষ প্রতিকে পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৩২৩ ভোট।

নৌকার প্রার্থি সবুজ ৩ লাখ ৮ হাজার ৫৩৮ ভোট বেশি পেয়ে জয়লাভ করেছেন।

তার এ বিজয়ের মধ্য দিয়ে এই জনপদের মানুষের মুক্তির সোনালী দিনের সূচিত হয়েছে।

অন্যদিকে ৩ লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থিকে পরাজিত করার রেকর্ড ও মাইল ফলক স্পর্শ করায় এই জনপদের মানুষ প্রত্যাশা করছে জাতির জনকের কন্যা সবুজকে মন্ত্রীসভায় জায়গা করে দিয়ে জনমানুষের প্রতি ও তাদের আশা আকাঙ্খা ও স্বপ্নকে সত্যি করে দেবেন।

সবুজের এই ভোট প্রাপ্তি দেশের সংসদীয় ভোটের রাজনীতিতে যেমন ইতিহাস হয়ে থাকবে, তেমনি চির বঞ্চিত গাজীপুর-৩ জনপদের মানুষ পাবেন একজন মন্ত্রী, যিনি তাদের স্বপ্নের প্রতিক হয়ে বঞ্চিত মানুষের উন্নয়নে অবিস্মরণীয় অবদান রাখবেন।

উঠান বৈঠকের রুপকার, গাজীপুরের রাখাল রাজা ইকবাল হোসেন সবুজের এই রেকর্ড পরিমান ভোট প্রাপ্তির পর এই আসনের ভোটাররা তাদের প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা এই রেকর্ড বিজয়কে আমলে নেবেন এবং ইকবাল হোসেন সবুজকে মন্ত্রীপরিষদে জায়গা করে দিয়ে এই আসনের মানুষের ব্যালট বিপ্লবকে সম্মান জানাবেন।