কাগজ প্রতিবেদক: কটিয়াদী-পাকুন্দিয়ার এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম নূর মোহাম্মদ। নূর মোহাম্মদ ১৯৮৪ পুলিশ বিভাগে যোগদান করেন। তত্ত্ববধায়ক সরকারের সময়ে ২০০৭ সালের ২৯শে জানুয়ারি তিনি পুলিশের মহাপরিদর্শকের দায়িত্ব গ্রহণ করেন এবং ২০১০ সাল পর্যন্ত এই দায়িত্ব পালন করেন। ২০১১ সালের ৮ই এপ্রিল তিনি মরক্কোয় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ পান। এছাড়া তিনি যুব ও ক্রীড়া সচিব হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

২০১৮ সালের নভেম্বরে তিনি কিশোরগঞ্জ-২ আসনের বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন গ্রহণ করেন। ৩০শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০,৭৭৬ ভোট পেয়ে ধানের শীষ প্রারথী মেজর অব. আখতারুজ্জামান কে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পড়াজিত করে তিনি বিজয়ী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। একাদশ সংসদ নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে ৩০ শে ডিসেম্বর।

সারাদেশে অভূতপূর্ব ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারি সংগঠন আ’লীগ ৪র্থ বারের মত টানা তৃতীয় বারের মত শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে।

কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া দুই উপজেলার ১৬৫টি ভোট কেন্দ্রের বেসরকারি ফলাফলে মহাজোট প্রার্থী নূর মোহাম্মদ পেয়েছেন ৩ লাখ ৭৭৬ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান রঞ্জন ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৫৪ হাজার ৫০ ভোট। সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদ নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে বিজীয় হয়েছেন। তার এ বিজয়ের মধ্য দিয়ে এই জনপদের মানুষের মুক্তির সোনালী দিনের সূচিত হয়েছে। প্রায় ৩ লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থিকে পরাজিত করার রেকর্ড ও মাইল ফলক স্পর্শ করায় এই জনপদের মানুষ প্রত্যাশা করছে জাতির জনকের কন্যা নূর মোহাম্মদকে মন্ত্রীসভায় জায়গা করে দিয়ে জনমানুষের প্রতি ও তাদের আশা আকাংখা ও স্বপ্নকে সত্যি করে দেবেন।