এস এম শফিকুল ইসলাম: জয়পুরহাট সদর উপজেলার বম্বু ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সাজগর হোসেনের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলে পেট্রোল ঢেলে অগ্নিসংযোগ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার রাতে পাকার মাথা-বটতলী সড়কের বেইলী ব্রিজের নিচে এ ঘটনা ঘটে। বম্বু ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সাজগর হোসেন অভিযোগ করে বলেন, গত ২৪ ডিসেম্বর ক্ষেতলাল উপজেলার ইকরগাড়া গ্রামে আ’লীগের নির্বাচনী অফিসে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আমাকে আসামী করা হয়। সর্বশেষ ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্টিত জাতীয় নির্বাচনের দিন সকালে বটতলী বাজারে আ’লীগ-বিএনপি সংঘর্ষের মামলায় তার স্ত্রীকে আসামী করা হয়। সেই মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বটতলী সাজ্জাদ ফিলিং ষ্টেশনের একটি চায়ের ষ্টলে বসে চা পান করছিলেন তিনি। এ সময় তালতলী বাজারের বাসিন্দা আফজাল হোসেনের ছেলে সরকার দলীয় ফারুক হোসেন, সরকার পাড়া গ্রামের দুদু মেম্বারের ছেলে মাবুদ হোসেন ও মধ্যপাড়া গ্রামের তসলিম হোসেনের ছেলে তরিকুল সহ ৭/৮ জনের একটি দল ৪টি মোটর সাইকেল নিয়ে তাকে ঘেরাও করে। এ সময় তারা মারমুখী হলে সাজগর দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে ধারকী সোটাহারের দিকে রওয়ানা দেয়। এ সময় সাজগরের পিঁছু নিয়ে তারা ধাওয়া করলে জীবন বাঁচানোর ভয়ে সোটাহার মোড়ে তিনি মোটরসাইকলেটি রেখে পালিয়ে যায়। পরে তারা একটি ভ্যানে করে সুজুকী হায়াতী মোটরসাইকেলটি তুলে নিয়ে ঘোনপাড়া বেইলী ব্রিজের নিচে পেট্রোল ঢেলে অগ্নিসংযোগ করে দেয়। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সদর থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেও তিনি জানান। এ ব্যাপারে একাধিক অভিযুক্ত ব্যক্তির সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তাদের পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মমিনুল হক জানান, ঘটনাটি মৌখিক ভাবে শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।