কাগজ প্রতিবেদক: অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়ে ন্যয়ের পক্ষে কথা বলাই সংবাদকর্মীর কাজ। স্বেচ্ছায় সেবা দেওয়াই সংবাদকর্মীর ধর্ম। বিপদগামী মানুষের পাশে দাড়িয়ে সেবার পথই একজন সংবাদকর্মীর লক্ষ্য।
কিন্তু আজ দেশে হাজার হাজার সংবাদকর্মীরা বিভিন্ন কারনে অসহায় ও মানবেতর জীবনযাপন করছে। তাহলে এদের পাশে কে দাড়াবে- সেবা দেওয়ার জন্য?

এমনি একজন সংবাদকর্মী নীলফামারী জেলা জলঢাকা উপজেলার ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নের সিদ্ধেশ্বরী গ্রামের আব্দুল হাই এর পুত্র হাসানুর কাবির মেহেদী (৩৮)। তিনি ২০০২ সালে সাপ্তাহিক জলকথা পত্রিকা দিয়ে সাংবাদিকতা পেশায় কর্মজীবনের পথচলা শুরু করেন। পরবর্তীতে সাপ্তাহিক ফলোআপ দৈনিক উত্তরবাংলা, বাংলাবাজার পত্রিকা ও কালবেলাসহ বিভিন্ন পত্রিকায় কাজ করেছেন।

২০১১ সালে দৈনিক জলকথার উপ সম্পাদক এবং পরে বার্তা বিভাগে ২০১৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন তিনি। কিন্তু অজানা কোন কারনে তাকে চাকুরী থেকে অব্যাহতি দেয় প্রতিষ্ঠানটি। ফলে পারবারিক স্বচ্ছলতা হারিয়ে ফেলে দিশেহারা হয়ে পড়েন এই সংবাদ কর্মী। বয়স বাড়ার সাথে সাথে কমতে থাকে শরীরের শক্তি আর আস্তে আস্তে হয়ে পড়েন রুগ্ন। বর্তমানে তিনি কর্মহীন।

একদিকে ৫ সদস্যের পরিবার অন্যদিকে নিজে রুগ্ন উপার্জনে অক্ষম। বর্তমানে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে করছে মানবেতর জীবন যাপন। তাই কথায় বলে, “ মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য, একটু সহানুভুতি কি পেতে পারেনা”। তৃণমূল সংবাদকে কান্নাজড়িত কন্ঠে তার অসহায়ত্ত্বের কথা জানালেন হাসানুর কাবির মেহেদী।

বর্তমানে সমাজের বৃত্তবান দানবীরদের নিকট ও বর্তমান সরকারের নব-নির্বাচিত টানা তৃতীয় বারের মত সরকার গঠন করতে যাওয়া প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন এই সংবাদকর্মী। যোগাযোগ হাসানুর কাবির মেহেদী: ০১৮৩৪-৩৬০৩৩৫।