মো.ওসমান গনি: আগামী ৩১মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চান্দিনা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।এ নির্বাচন কে সামনে রেখে চান্দিনা বাসীর সুখ-দুঃখের সাথী হিসেবে নির্বাচনী কাজ করে যাচ্ছেন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সাফিয়া আক্তার। তিনি উপজেলার সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের সাথে নির্বাচনী মতবিনিময় ও গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন।ব্যক্তি জীবনে প্রতিহিংসা ও দলমতের উর্ধ্বে থেকে নারীদের ক্ষমতায়ন ও অধিকার প্রতিষ্ঠাসহ উপজেলার সামগ্রিক উন্নয়নে তাকে নির্বাচিত করতে তিনি নিয়মিত গণসংযোগ করে ভোটারদের দোয়া ও আশীর্বাদ কামনা করছেন। অত্যন্ত মিষ্টভাষী জনপ্রতিনিধি হিসেবে ইতোমধ্যে এলাকার মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন এই নারী নেত্রী। ২০০৮ সালের উপজেলা পরিষদে নির্বাচিত সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়া আক্তার এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণায় গিয়ে পাচ্ছেন স্বতঃস্ফুর্ত সাড়া। তাকে নিয়ে চান্দিনার সর্বত্র সাধারণ মানুষের মাঝে চলছে নানা আলোচনা সমালোচনা। চা-দোকান থেকে শুরু করে নির্বাচনী মাঠে। বিশেষ করে উপজেলায় বাল্য বিয়ে বন্ধ,দরিদ্র মেয়েদের বিয়ে কাজে সহযোগিতা,চিকিৎসা বঞ্চিত মানুষদের চিকিৎসা সেবা, শিক্ষা, সংস্কৃতি ও ক্রীড়াঙ্গনের উন্নয়নে স্বতঃস্ফুর্ত দায়িত্ব পালন করে দক্ষতার স্বাক্ষর রেখেছেন তিনি। এছাড়াও সামাজিক ও ধর্মীয় কর্মসূচিতেও ছিল তাঁর সরব উপস্থিতি। সাফিয়া আক্তার বলেন বিগত দিনে চান্দিনার সর্বস্তরের জনগণের যে ভালোবাসা আমি পেয়েছি তা কখনো ভুলবো না। আমি সব সময় এ উপজেলার মানুষের সুখ-দুঃখে পাশে থাকতে চাই। আমার সীমিত ক্ষমতার মধ্যে আমি সততার সাথে মানুষের সেবা করার চেষ্টা করেছি। আগামী ৩১ মার্চ চান্দিনা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তাকে (পদ্মফুল মার্কায়) ভোট দিয়ে উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান করতে সকল ভোটারদের তিনি দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেন। এদিকে সাফিয়া আক্তার আগামী ৩১ মার্চ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে তার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেনঃ *সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ঘোষিত ” রুপকল্পঃ২০৪১” বাস্তবায়নে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এবং চান্দিনার গণমানুষের নেতা অধ্যাপক আলী আশরাফ এমপির নির্দেশনা অনুযায়ী চান্দিনাবাসীর উন্নয়নে নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে কাজ করে যাবো। *নারী উন্নয়র, নারী ক্ষমতায়ন,লিঙ্গ সমতা ও শিশুকল্যাণ প্রতিষ্ঠায় যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করবো। *নারী উদ্যোক্তাদের জন্য আলাদা ব্যাংকিং সুবিধা,ঋণ সুবিধা,কারিগরি সুবিধা ও সুপারিশসহ সরকার ঘোষিত অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।

*শ্রমজীবি নারীদের কর্মক্ষেত্রে বৈষম্য দূরীকরণ এবং সামাজিক নিরাপত্ত্বা নিশ্চিত করবো।

*আমার গ্রাম,আমার শহর- এই প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে চান্দিনা উপজেলার প্রতিটি গ্রামে আধুনিক নগর সুবিধা সম্প্রসারণে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

*সরকারি সেবা সমূহ সহজলভ্য ও চান্দিনাবাসীর নাগালের মধ্যে নিতে “ডিজিটাল বাংলাদেশ” তথা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সম্প্রসারণে সর্বোচ্চ সোচ্চার থাকব।চান্দিনা উপজেলা ব্যাপী ই-গভর্নেন্স ও ই- পরিসেবা সম্প্রসারিত করণে অব্যাহত ভূমিকা রাখবো।

*দারিদ্র নির্মূল,পুষ্টিসম্মত ও নিরাপদ খাদ্যের নিশ্চয়তায় কৃষি,স্যানিটেশন,সমাজকল্যাণ, যোগাযোগ ব্যবস্থা ও ভৌত অবকাঠামো বিনির্মানে আধুনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

*সকলের জন্য মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবার পাশাপাশি সকল স্তরে শিক্ষার মান বৃদ্ধিতে অগ্রগণ্য ভূমিকা পালন করবো। *উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার নিয়মিত খেলাধুলার ব্যবস্থাকরণে ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর মাধ্যমে অত্র এলাকার কৃষ্টি-সংস্কৃতির উন্নয়নে যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করবো।

*বয়োবৃদ্ধ/প্রবীণ,প্রতিবন্ধী ও অটিজম কল্যাণে সরকারি পদক্ষেপগুলো জনসাধারণের দাঁড়গোড়ায় পৌছিয়ে দিব। *স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণে চান্দিনা উপজেলা ব্যাপী দুর্নীতির বিরুদ্ধ “জিরো টলারেন্স” নীতি গ্রহণ করবো।

*সন্ত্রাস-সাম্প্রদায়িকতা-জঙ্গিবাদ ও মাদক নিমুর্ল, জনকল্যাণ,দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা,ত্রাণ ও যুব সমাজের উন্নয়নসহ প্রভৃতিক্ষেত্রে আইন শৃংখলা বাহিনীর সহযাত্রী হয়ে ভূমিকা রাখবো।