কাগজ প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের অন্তর্কোন্দলে বৈশাখী কনসার্টের আয়োজনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ব্যানার, ফেস্টুন, বিজ্ঞাপন বুথ ও স্টলে ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।
শুক্রবার দিবাগত রাত ১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মল চত্ত্বরে এ ঘটনা ঘটে।
পহেলা বৈশাখকে সামনে রেখে ১৩ ও ১৪ এপ্রিল কনসার্টের আয়োজন করেছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ। কনসার্টে জেমস, মিলা, ওয়ারফেজ, আরসেল ও ফিট ব্যাকসহ বেশ কয়েকটি ব্যান্ড আসার কথা রয়েছে।
বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, বৈশাখী কনসার্টে মোজো কোম্পানি স্পন্সর করেছে।ঘটনার সময় মোজোর ২৭টি ফ্রিজের মধ্যে প্রায় ১৩টি ভাঙচুর করে আগুন দেওয়া হয়। এতে সাজানো প্যান্ডেলগুলোও পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হামলার সময় ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের অনুসারীদের অনেককেই ঘটনাস্থলে দেখা যায়। সাংগঠনিক বিরোধ থেকেই এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এ ব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিৎ চন্দ্র দাস বলেন, ‘এটি খুবই লজ্জাজনক একটি ঘটনা। যে বা যারা এটি করুক। আমরা তাদের মুখোশ উন্মোচন করব। কোনোভাবেই পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানকে বাধাগ্রস্থ করা যাবে না।শনিবার কনসার্ট অনুষ্ঠিত হবে।’
এদিকে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন ডাকসুর জিএস ও ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিৎ চন্দ্র দাস এবং ডাকসুর এজিএস ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। এ সময় ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন উপস্থিত ছিলেন না।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাবির প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ একে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘এটা কখনোই কাম্য নয়। কারা এ ভাঙচুর করেছে তা খতিয়ে দেখা হবে।’

Previous articleমালয়েশিয়ায় জুয়ার আসর থেকে গ্রেপ্তার ৩ বাংলাদেশি
Next articleনুসরাতকে আগুন দেয়ার ঘটনায় ৬, পুরো হত্যাকাণ্ডে জড়িত ১৩ জন: পিবিআই
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।