মো. ওসমান গনি: টানা তৃতীয় দিনের মতো দেশের লাইফ লাইন খ্যাত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজট অব্যবহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার এ দীর্ঘ যানজট কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার ইলিয়টগঞ্জ থেকে মুন্সিগঞ্জের মেঘনা সেতু পর্যন্ত প্রায় ৩০ কিলোমিটার ছাড়িয়ে গেছে। কুমিল্লা থেকে ঢাকা যেতে যেখানে সময় লাগতো ২ ঘন্টা এখন সেখানে সময় লাগছে ৮ থেকে ১০ ঘন্টা। তীব্র যানজটে চরম দুর্ভোগে পড়েন রোজাদার যাত্রীরা।

বিশেষ করে নারী ও শিশুদের কষ্টের সিমা ছিলোনা। মঙ্গলবার সকালে রমজানের শুরুতে তীব্র এ যানজট শুরু হয়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েন রোজাদাররা। তীব্র গরমে নাকাল যাত্রীদের বসে থাকতে হচ্ছে ঘন্টার পর ঘন্টা। গৌরীপুর থেকে ঢাকায় যেতে সেখানে সময় লাগতো দেড় ঘন্টা সেখানে এখন সময় লাগছে ৮/১০ ঘন্টা। মহাসড়কের এ যানজটের কারনে সবচেয়ে বিপাকে আছেন রোগী ও বিদেশগামী মানুষ। সেই সাথে বিপাকে নারী ও শিশুরা। চালকরাও অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। অনেককে তীব্র গরমে রাস্তায় গাড়ি বন্ধ করে ঘুমিয়ে পড়েন। মাত্রাতিরিক্ত যানবাহনের চাপ, মেঘনা ও গোমতী সেতুতে টোল আদায়ে ধীরগতি এবং সেতুতে একমুখি ও ধীরগতিতে যান চলাচলের কারনে যানজটরে সৃষ্টি বলে হাইওয়ে পুলিশ জানায়।