কেশবপুরে প্রভাবশালী সাধন গংদের বিরুদ্ধে অসহায় ব্যক্তির সংবাদ সম্মেলন

কেশবপুরে প্রভাবশালী সাধন গংদের বিরুদ্ধে অসহায় ব্যক্তির সংবাদ সম্মেলন

জি.এম.মিন্টু: এওয়াজ দখলীয় সম্পত্তি থেকে অসহায় পরিবারকে উচ্ছে করার গভীর ষড়যন্ত্রকারী সাধন গংদের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে কেশবপুর উপজেলার মুল গ্রামের আব্দুল গনি খাঁনের ছেলে দলিল লেখক আব্দুর রাজ্জাক বাবলু। বুধবার সকালে কেশবপুর নিউজক্লাবে তিনি ্এই সংবাদ সম্মেলন করেন।
লিখিত বক্তব্যে আব্দুর রাজ্জাক বাবলু উল্লেখ করেন, তিনি প্রায় ১০ মাস পূর্বে প্রতিবেশী একই গ্রামের মৃত সরৎ কুমার বিশ্বাসের ছেলে সুদীর কুমার,অরুপ কুমার, অশোক কুমার ও মৃত মজেন্দ্র চন্দ্র বিশ্বাসের ছেলে দুলাল ও সাধন চন্দ্র বিশ্বাসের কাছ থেকে মুলগ্রাম ২৬ নং-মৌজার ৯০৫ খতিয়ানের ৮৫০ দাগের তাদের নামীয় ২ শতক জমি স্বত্বদখলীয় ৮৩৮ দাগের সহিত মৌখিক এওয়াজ মাধ্যমে দখল স্বত্ব কায়েম পূর্বক সেখানে পাকা বসতঘর নির্মান করে বসবাস করে আসছি। সম্প্রতি জমির মালিকগন এওয়াজ শর্ত ভঙ্গ করে প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে তার দখলীয় সম্পত্তি হতে উচ্ছেদ করতে উক্ত ২ শতক জমি একই এলাকার আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে আঃ হামিদ ও আঃ হালিমের নিকট বিক্রির গভীর ষড়যন্ত্রে লীপ্ত হয়েছে। গত ৩০-০৮-১৯ তারিখ সকালে উপরক্ত আসামীগন তার বসতবাড়ীতে অনধিকার প্রবেশ করে তৈরি রান্না ঘর ভাংতে গেলে তিনি ও তার পরিবার বাধা সৃষ্টি করলে তারা খুন জখমের হুমকী প্রদান করে। এ ঘটনায় গত ০১-০৯-১৯ তারিখ তিনি বাদী হয়ে উক্ত নালিশী জমির উপর ১৪৪ ধারা জারির আবেদন জানিয়ে উক্ত বিবাদীদের বিরুদ্ধে যশোর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এর আদালতে অভিযোগ দাখিল করলে বিজ্ঞ আদালত সেটি মঞ্জুর করেন। আদালতের নির্দেশে কেশবপুর থানা পুলিশ উক্ত নালিশী জমির উপর ১৪৪ ধারা জারি করেন। এছাড়া তার দখলীয় সম্পত্তি অন্যত্র বিক্রি না করার জন্য উপরক্ত আসামীদের বিরুদ্ধে কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানা ইনচার্জসহ বিভিন্ন দপ্তরে একাধিক অভিযোগ করা হয়েছে।সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, আব্দুল খালেক,আব্দুল গনি ও আব্দুল হাকিমসহ অনেকে।
পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে ষড়যন্ত্রকারী সাধন গং এবং আব্দুল হামিদ ও হালিমের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য অসহায় বাবলুর পরিবার উদ্ধার্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।