রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোট গ্রহণের সকল প্রস্ততি সম্পন্ন

জয়নাল আবেদীন: রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোট গ্রহণের সকল প্রস্ততি সম্পন্ন করেছে রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস। শেষ হয়েছে ভোট গ্রহণকারী কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ। মক ভোটিং এর মাধ্যমে ভোটারদের ইভিএম (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) ব্যবহারের ধারণা দেয়া হয়েছে। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন সম্পূর্ণ করতে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তাসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকেও দেয়া হয়েছে নির্দেশনা। এখন শুধু অপেক্ষা ৫ অক্টোবরের। রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত সংসদ নির্বাচনের মত এবারও রংপুর-৩ আসনে ১ শত ৭৫টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ করা হবে। এর জন্য ১ শত ৭৫ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ১ হাজার ২৩ জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার এবং ২ হাজার ৪৬ জন পোলিং অফিসারকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। ঝুকিপীর্ণ ৪৯টি কেন্দ্রসহ মোট ১ শত ৭৫টি ভোট কেন্দ্রে ১ হাজার ২৩টি গোপনকক্ষে ভোট গ্রহণ করা হবে। রংপুর সেনানিবাস, রংপুর সদর উপজেলা এবং রংপুর সিটি করপোরেশনের ৩৩টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৮টি ওয়ার্ড ছাড়া বাকি গুলো নিয়ে রংপুর-৩ আসন। এই আসনে মোট ভোটার ৪ লাখ ৪১ হাজার ২ শত ২৪ জন। এরমধ্যে পুরুষ ২ লাখ ২০ হাজার ৮ শত ২৩ এবং নারী ভোটার ২ লাখ ২০ হাজার ৪ শত ১ জন। আচরণবিধি, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ও অপরাধ দমনে রংপুর সদর ও সিটি করপোরেশন এলাকাতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছে। ভোট গ্রহণের দিনও তারা মাঠে থাকবে। এছাড়াও প্রতিটি কেন্দ্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আনসার, ভিডিপি, পুলিশ ও বিজিবির সদস্য মোতায়েন থাকবে। এছাড়াও র‌্যাব-পুলিশসহ সাদা পোশাকে গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবেন। রংপুর-৩ শুন্য আসনে ছয় জন প্রার্থী দলীয় প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্যে এরশাদের পুত্র আওয়ামীলীগ সমর্থিত জাতীয় পার্টির প্রার্থী রাহগির আলমাহি সাদ এরশাদ (লাঙ্গল), এরশাদেও ভাতিজা সাবেক সংসদ সদস্য হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মোটর গাড়ি, বিএনপি প্রার্থী রিটা রহমান (ধানের শীষ), এনপিপির শফিউল আলম (আম), খেলাফত মজলিসের তৌহিদুর রহমান মন্ডল (দেওয়াল ঘড়ি) এবং গণফ্রন্টের কাজী মোঃ শহীদুল্লা বায়েজীদ (মাছ) প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করছেন। এই ছয় প্রার্থীর মধ্যে ভোটারদের আলোচনায় রয়েছেন এরশাদ পরিবারের দুই প্রার্থী সাদ এরশাদ ও আসিফ শাহরিয়ার আর বিএনপির রিটা রহমান। রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার জি.এম. সাহাতাব উদ্দিন জানান, ভোট গ্রহণের জন্য আমাদের সব ধরণের প্রস্ততি রয়েছে। ভোটাররা যাতে নির্বিঘেœ শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দিতে পারে, সেজন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে। ভোট গ্রহণে বাধা সৃষ্টি, ভোটারদের ভয়ভীতি দেখার চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।