শরীয়তপুরে ত্রাণ নিয়ে কথাকাটির জেরে এক ব্যক্তিকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলায় ‘ত্রাণ নিয়ে কথাকাটির জেরে’ এক ব্যক্তিকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে গোসাইরহাট উপজেলার পৌর এলাকার বিনোটিয়ায় এ ঘটনা ঘটে বলে গোসাইরহাট থানার ওসি মোল্লা সোহেব আলী জানান।

নিহত বিল্লাল হোসেন বেপারী (৪২) ওই এলাকার মান্নান বেপারীর ছেলে।

নিহতের চাচা রকমান বেপারী বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে গোসাইরহাট উপজেলার পৌর এলাকার ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হুমায়ুন কবীর সিকদারের সমর্থক বিল্লালের সঙ্গে ত্রাণের তালিকা নিয়ে কাদের বেপারীর কথা কাটাকাটি হয়।

“পরে রাত ৮টার দিকে কাদেরের ছেলে ফেরদৌস মোবাইলে ফোন করে বিল্লালকে বিনোটিয়া দীঘির পাড়ে ব্রিজের ওপর ডেকে নিয়ে যায়। পরে ফেরদৌস ও তার লোকজন বিল্লালকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। এ সময় বিল্লালকে রক্ষা করতে তার ছোট ভাই হোচেন বেপারী এগিয়ে গেলে তাকেও পিটিয়ে আহত করা হয়।”

পরে স্থানীয়রা খবর পেয়ে বিল্লালকে উদ্ধার করে গোসাইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান রকমান।

এ ব্যাপারে বিল্লালের ছেলে হাসান বেপারী বলেন, “আমার বাবাকে আনিছ বেপারী, কাদের বেপারী ও তার লোকজন হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে খুন করেছে।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওয়ার্ড কাউন্সিলর হুমায়ুন কবীর সিকদার বলেন, “আমি বিল্লালকে দিয়ে আমার অফিসিয়াল কিছু কাজ করাই। তাই বিল্লালের কাছে কাদের বেপারী ত্রাণ চেয়েছিল। বিল্লাল বলেছে, আপনাকে ১০ টাকা কেজি চালের কার্ড দেওয়া হয়েছে। আপনাকে ত্রাণ দিলে অন্যদের কি দিব। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে বিল্লালকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে খুন করেছে।”

ওসি বলেন, পুলিশ বিল্লালের লাশ উদ্ধার করে তা ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে হাসান বাদী হয়ে আটজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন, আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।