পুলিশ বাবার পর ভেসে উঠল ছেলের লাশ

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: নড়াইলের লোহাগড়ায় মধুমতী নদীতে নিখোঁজ পুলিশ কনস্টেবল আবু মুসা রেজওয়ানের (২৮) লাশ পাওয়া গেছে। এর সাড়ে সাত ঘণ্টা পর পাওয়া গেল তাঁর ছয় মাস বয়সী ছেলের লাশ।

গত শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে নদীতে বেড়াতে গিয়ে নৌকা ডুবে বাবা-ছেলে নিখোঁজ হয়।

আজ রোববার সকাল সাড়ে আটটার দিকে মহিষাপাড়া এলাকায় নদীতে আবু মুসার লাশ ভেসে ওঠে। একই এলাকায় বিকেল চারটার দিকে ভেসে ওঠে ছেলে আনাসের লাশ।

আবু মুসা পুলিশ সদর দপ্তরে কর্মরত ছিলেন।

লোহাগড়া ফায়ার সার্ভিসের তত্ত্বাবধায়ক মাসুদ রানা জানান, গত শুক্রবার বিকেলে আবু মুসা তাঁর পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ট্রলারে করে কালনাঘাট এলাকায় নদীতে ঘুরতে বের হন। ট্রলারে মুসা, তাঁর স্ত্রী সাদিয়া, ছয় মাস বয়সী ছেলে আনাসহ আটজন ছিলেন।

ঘাটের দিকে ফিরে আসার সময় সন্ধ্যা ছয়টার দিকে নির্মাণাধীন সেতু এলাকায় ট্রলারের ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায়। নদীতে তখন প্রচণ্ড স্রোত ছিল। স্রোতের ধাক্কায় কোলে থাকা শিশুসহ মুসা নদীতে পড়ে যান। তাঁদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।

মাসুদ রানা জানান, আজ সকাল সাড়ে আটটার দিকে কালনাঘাট এলাকা থেকে সাত কিলোমিটার দক্ষিণে ভেসে ওঠা লাশ দেখে এলাকাবাসী ওই পরিবারকে খবর দেন। এরপর থানা-পুলিশের সহায়তায় লাশ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। দুপুরে তাঁকে দাফন করা হয়। বিকেল চারটার দিকে একই এলাকায় ভেসে ওঠে তাঁর ছয় মাস বয়সী ছেলের লাশ।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, নৌবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল গতকাল শনিবার সারা দিন চেষ্টা করেও লাশ উদ্ধার করতে পারেনি। সন্ধ্যায় তারা অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করে।