বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ময়মনসিংহের কেওয়াটখালিতে আশিক হত্যার রহস্য উন্মোচন করেছে পুলিশ। স্ত্রী জাকিয়া তার সাবেক স্বামী রুবেলকে নিয়ে হত্যা করে স্বামী আশিককে। বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ভোরে রুবেলকে গ্রেফতার করে কোতোয়ালি পুলিশের একটি দল।

পরে তার দেখানো স্থান কেওয়াটখালি রেললাইনের পাশ থেকে দুপুরে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি চাকু উদ্ধার করেছে পুলিশ। আশিকের স্ত্রীকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, বলাশপুর এলাকার রুবেলকে ডিভোর্স দিয়ে কেওয়াটখালি এলাকার যুবক আশিককে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করতে বাধ্য করে একই এলাকার আব্দুর রউফের মেয়ে জাকিয়া সুলতানা। দুই বছর সংসার চললেও জাকিয়া আবারো সংস্পর্কে জড়ায় সাবেক স্বামী রুবেলের সাথে। দুইজনে মিলে পরিকল্পনা করে আশিককে হত্যার। পরিকল্পনা মতো গত ১৫ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় স্ত্রী জাকিয়ার স্বামী আশিককে কেওয়াটখালি রেললাইনের পাশে নিয়ে আসে। রাত সাড়ে সাতটার দিয়ে রেললাইনের পাশে তার সাবেক স্বামী রুবেলকে নিয়ে চাকু দিয়ে উপুর্যুপরি আঘাত করে আশিককে হত্যা করে মরদেহ ফেলে চলে যায়। পরে রাত দেড়টার দিকে পুলিশ উদ্ধার করে।

পরে স্ত্রী জাকিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করলে সে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। তার স্বীকারোক্তিতে সাবেক স্বামী রুবেলকে বৃহস্পতিবার ভোরে বলাশপুর থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে দুপুরে রুবেলেকে নিয়ে অস্ত্র উদ্ধারে কেওয়াটখালি এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। পরে তার দেখানো স্থান থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার করা হয়। ওই দিনই একশ টাকা দিয়ে চাকুটি কিনে আনে রুবেল।

এদিকে হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফিরোজ তালুকদার জানান, এ ঘটনায় নিহতের পিতা বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। স্ত্রী জাকিয়া ও সাবেক স্বামী রুবেল পরিকল্পিতভাবে আশিককে হত্যা করেছে। দুইজনই জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

Previous articleআবারও কলকাতা নাইট রাইডার্সে সাকিব
Next articleরাজস্থানে ১ কোটিতে মুস্তাফিজ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।