তাবারক হোসেন আজাদ: বৃহস্পতিবার রাতে “তালা চুরির অভিযোগে শিশুকে (৩) বৈদ্যুতিক শক দিয়ে হত্যা চেষ্টা”-শিরোনামে কয়েকটি অনলাইনে সংবাদ প্রকাশের পর-লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে অভিযুক্ত সেই তোফায়েলকে কারাগারে পাঠিয়েছে থানা পুলিশ।

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে আহত শিশুর পিতা জামাল হোসেনের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে মুরগির খামার মালিক মোঃ তোফায়েলকে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারী) বিকালে উপজেলার কেরোয়া ইউপির মীরগঞ্জ বাজার পাশে ইসমাইল বেপারি বাড়ীর সামনে।

আহত শিশু মিনহাজ (৩) রায়পুর সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছে । এঘটনায় শুক্রবার দুপুরে থানায় মামলা করেছেন শিশুর পিতা দিনমজুর জামাল হোসেন।

মামলার বিবরনে জানাযায়, বৃহস্পতিবার সকালে শিশু মিনহাজকে মীরগঞ্জ হাফেজী মাদরাসায় যায়। দুপুরে মাদরাসা ছুটি হলেও সে বাড়িতে না ফেরায় তার মা লাভলি বেগম বাড়ীর সামনের মুরগীর খামারে মিনহাজকে হাত-পা বাঁধাবস্তায় চিৎকার দিতে শুনলে দৌড়ে গিয়ে আহতাবস্তায় উদ্ধার করে। তার মাথার পেছনের অংশে ও ঘারে বৈত্যুতিক শক দিয়ে জখম করা ও গলায় দা লাগিয়ে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়। এসময় চিৎকার দিলে খামার মালিক তোফায়েল পালিয়ে যায়।

এছাড়াও খামারি তোফায়েল গত তিন বছর মিটারে না নিয়ে সরাসরি খাম্বার মাধ্যমে অবৈধ সংযোগ দিয়ে বিদ্যুত ব্যবহার করে আসছেন।

এঘটনা জানতে চাইলে অভিযুক্ত মুরগির খামারি তোফায়েল বলেন, খামারের দরজার তালা চুরি করায় শিশু মিনহাজকে বৈদ্যুতিক শক দিয়ে ভয় দেখিয়েছি। অন্য কিছু করি নাই। বিদুৎত অফিস থেকে অনুমতি নিয়েই মিটার ছাড়াই খাম্বা থেকে সংযোগ নিয়ে বিদুৎ ব্যবহার করছি।

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক। যুগান্তরে সংবাদ পেয়েই ওই রাতে শিশু নির্যাতনকারি তোফায়েলকে তার বাড়ীর খামার থেকে আটক করা হয়। শুক্রবার সকালে শিশুর পিতার মামলায় তোফায়েলকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।