বাংলাদেশ প্রতিবেদক: একদিকে লকডাউন, অন্যদিকে করোনা তার ওপর রমজান মাস। এমন অবস্থায় গত তিন মাস ধরে পানি পাচ্ছেন না রাজধানীর শাহজাদপুর এলাকার মানুষ। এ গরমে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন এলাকাবাসী। ওয়াসা বলছে, এরই মধ্যে সংকট সমাধানের কাজ শুরু হয়েছে।

দেশে করোনা মহামারি বা লকডাউন সবকিছুই উপেক্ষিত পানির সংকটের কাছে। কয়েক লাখ মানুষের জন্য একটি মাত্র পানির টিউবওয়েল। সেখান থেকে পানি সংগ্রহে এলাকাবাসী। সেখানে সব সময় ভিড় লেগেই থাকে।

বাড্ডা- শাহজাদপুর এলাকায় পানি নেই ফেরুয়ারি থেকে। বারবার পানির জন্য আন্দোলন করে শুধুই মিলেছে আশ্বাস, বাস্তবে মেলেনি এক ফোঁটা পানিও।

পানির এ সংকট এক শ্রেণির মানুষ পানি নিয়ে করছে বাণিজ্য। ৩০ টাকার পানির জার এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকায়। এমন অবস্থায় স্থানীয়রা বলছেন, ওয়াসার ভূতুড়ে বিলের খপ্পরে পড়ে পানি না পেয়েও গুণতে হচ্ছে বাড়তি টাকা।

ওয়াসা বলছে, গ্রীষ্মের এ সময়টায় কিছু এলাকায় পানি সংকট রয়েছে। সমস্যা সমাধানে বসানো হচ্ছে নতুন করে পানির পাম্প।

ওয়াসার এমডি তাকসিম এ খান বলেন, এটা একটা সাময়িক সমস্যা, এটা কিন্তু ওভারল আমাদের এক বা দুই পারসেন্ট একটু সমস্যা। একটু সময় গেলে ঠিক হয়ে যাবে।

পানি সংকট দেখা দিলে ১৬১৬২ এই নম্বরের যোগাযোগ করা হলে দ্রুত ওই এলকায় পানি পৌঁছে দেয়ার আশ্বাস দেয় ওয়াসা।

মহামারির এই সময়টাতে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকাটা জরুরি হলেও নিত্যদিনের সামান্য পানিটুকু পাওয়া এই এলাকার মানুষ জন্য দুঃসাধ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে রমজানের এই সময়ে পানি সংকট সমাধানে ওয়াসাকে আরও দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান স্থানীয়দের।

Previous articleহেফাজতের ১৬ মামলার তদন্ত করবে পিবিআই
Next articleমিয়ানমারে খাদ্য সংকটের মুখে ৩৪ লাখ মানুষ: জাতিসংঘ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।